গ্রামের ছেলেমেয়েরা সবুজ সাথী প্রকল্পে সাইকেল পায়। কিন্তু কলকাতার পড়ুয়ারা কিছু পায় না। তাই এ বার শহরের স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের সাইকেলের বিকল্প কিছু দেওয়ার কথা ভাবছে তৃণমূল সরকার। 

বৃহস্পতিবার সকালে বেলতলা গার্লস হাইস্কুলের শতবর্ষের অনুষ্ঠানে নজরুল মঞ্চে এই আশ্বাস দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘‘গ্রামের ছেলেমেয়েরা সবুজ সাথী প্রকল্পে সাইকেল পেয়েছে। কারণ, তাদের অনেক দূরের স্কুলে যেতে হয়। কলকাতায় সবুজ সাথী প্রকল্পেয় সুবিধা দেওয়া যায় না। কারণ, কলকাতার রাস্তায় সাইকেল চলে না। শহরে সবুজ সাথীর বদলে কিছু করা যায় কি না, আমরা ভাবব।’’ মুখ্যমন্ত্রী জানান, দার্জিলিঙের পাহাড়ি রাস্তায় সাইকেল চালানোর সুযোগ কম। তাই সেখানে ছেলেমেয়েদের জন্য রেনকোট বা ব্যাগ দেওয়া হচ্ছে।

শহরের ছেলেমেয়েদের কী দেওয়া হতে পারে? সংশ্লিষ্ট সূত্রের খবর, শহরের ছেলেমেয়েদের রেনকোট, শীতবস্ত্র বা ব্লেজ়ার দেওয়া হতে পারে।

মুখ্যমন্ত্রী এ দিন জানান, স্কুলে কম্পিউটার ক্লাস, স্মার্ট ক্লাসের সঙ্গে সঙ্গে মূল্যবোধের ক্লাসও নেওয়া দরকার। আজকের দিনের পরিস্থিতি বিচার করে পড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে মূল্যবোধ, সততা, স্বচ্ছতার উপরেও গুরুত্ব দেওয়া জরুরি। এগুলোকে পঠনপাঠনের আওতায় আনার প্রয়োজন আছে। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘ছোটো বেলায় শিক্ষকেরা পড়াতেন, লোভে পাপ পাপে মৃত্যু। এগুলো আমরা ভুলিনি। একটা জমি চাষ করলে জমি উর্বর হয়। মাথাটাও তেমনই। ভাল জিনিস যদি চাষ করা যায়, ব্রেনটা সুন্দর হয়। শুধু হিংসা আর নেগেটিভ চিন্তা নয়।’’

শতবর্ষের বেলতলা স্কুল যদি কলেজ তৈরির পরিকল্পনা করে, তার জন্য সরকার জমি দেবে বলে আশ্বাস দেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘‘আমি চাই, বেলতলা স্কুল একটা কলেজও তৈরি করুক। তবে কলকাতায় জমির সমস্যা। রাজারহাটে জমি দেওয়া যেতে পারে।’’ মুখ্যমন্ত্রী জানান, স্কুলের সামগ্রিক পরিকাঠামো উন্নয়নে এক কোটি ২৫ লক্ষ টাকা দেওয়া হবে। বাংলার সঙ্গে স্কুলে ইংরেজি মাধ্যম চালু করার কথাও বলেন মমতা।

এ রাজ্যে এখন অনেক স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় হয়েছে। অনেক সুযোগ-সুবিধা বেড়েছে। তা হলে মেধাবী ছাত্রছাত্রীরা কেন বাইরে গিয়ে পড়াশোনা করবেন, এ দিন ফের সেই প্রশ্ন তোলেন মুখ্যমন্ত্রী।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও।সাবস্ক্রাইব করুনআমাদেরYouTube Channel - এ।