বন্‌ধের দিন এ রাজ্যে গাড়ি ভাঙচুর হলে ক্ষতিপূরণ দেবে রাজ্য সরকার। শুধু থানায় গিয়ে একটি জেনারেল ডায়েরি বা এফআইআর করতে হবে। পরে সেই নথি নিয়ে পরিবহণ দফতরে জমা দিলেই ক্ষতিপূরণ মিলবে। তা-ও আবার ৭২ ঘণ্টার মধ্যে।

আগামী ১০ সেপ্টেম্বর পেট্রল, ডিজেল ও রান্নার গ্যাসের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বন্‌ধ ডেকেছে কংগ্রেস। একই ইস্যুতে ওই দিনই হরতালের ডাক দিয়েছে বামেরাও। ওই দিন পূর্ণ শক্তি নিয়েই পথে নামছে বামেরা। কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সুর চড়াতে কংগ্রেসেও তৈরি।ওই দিনই পথে নেমে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাবে তৃণমূলও। কিন্তু বন্‌ধের পক্ষে নয় তারা। তাই রাজ্যবাসীকে বন্‌ধের বিরোধিতা করে পথে নামার অনুরোধও করা হয়েছে।এমন পরিস্থিতিতে ঝামেলার আশঙ্কাও রয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে খবর।

পরিবহণ দফতর জানিয়েছে, বন্‌ধের দিন কারও গাড়িতে ভাঙচুর হলে, ঘটনার ১২ ঘণ্টার মধ্যে থানায় অভিযোগ জানাতে হবে। পরে দক্ষিণ কলকাতার কসবায় পরিবহণ ভবনে গিয়ে সেই নথি দেখাতে হবে। সর্বোচ্চ ৭৫ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ পাওয়া যাবে।ক্ষতিপূরণের টাকা বীমা কোম্পানির মাধ্যমে দেওয়া হবে ক্ষতিগ্রস্ত গাড়ির মালিকদের।

আরও পড়ুন: টিএমসিপি সভাপতি নির্বাচনে সাহায্য করতে তৈরি উপদেষ্টা কমিটি, চেয়ারম্যান পার্থ

ইতিমধ্যেই সরকারি কর্মচারীদের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে নির্দেশিকা জারি করেছে অর্থ দফতর। জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, ১০ তারিখ অর্ধদিবস বা পূর্ণদিবস— কোনও ক্যাজুয়াল লিভই মঞ্জুর হবে না। নির্দিষ্ট কিছু কারণে যাঁরা আগে থেকে ছুটিতে আছেন বা নির্দেশিকায় বলে দেওয়া কয়েকটি কারণে যাঁরা অনুপস্থিত থাকবেন। যানবাহনের সমস্যা গরহাজিরার বৈধ কারণ বলে গ্রাহ্য হবে না।

আরও পড়ুন: কংগ্রেস ও বাম দলগুলির ডাকা ভারত বন্‌ধের বিরোধিতায় তৃণমূল

(পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বাংলায় খবর জানতে পড়ুন আমাদের রাজ্য বিভাগ।)