খবরের কাগজে বিজ্ঞাপন দেখে এয়ারপোর্ট অথরিটির অগ্নিনির্বাপণ ও সুরক্ষা দফতরের আবেদন করেছিলেন দমদমের বাসিন্দা তানিয়া সান্যাল। শারীরিক সক্ষমতার পরীক্ষায় পাশ করে পছন্দের পেশাতেই কাজ পেয়েছেন ওই তরুণী।

তানিয়ার মতোই যাঁরা অগ্নিনির্বাপণের পেশাকে চ্যালেঞ্জ হিসাবে গ্রহণ করতে চান, তাঁদের এবার সুযোগ করে দিতে চায় দমকল দফতর। বৃহস্পতিবার সদ্য দায়িত্বপ্রাপ্ত দমকলমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেন, “খুব তাড়াতাড়ি মহিলা ফায়ার ফাইটার নিয়োগ করা হবে।”পাশাপাশি দমকলকে ঢেলে সাজানোর একগুচ্ছ পরিকল্পাও নিয়েছেন ফিরহাদ।

তিনি বলেন, “আধুনিক যন্ত্র কেনার চিন্তাভাবনা রয়েছে। শপিংমল, বাজার, রেস্তরাঁ, সিনেমা-সহ ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠানে প্রতিবছর ‘ফায়ার অডিট’ করতে হবে। অডিট না করালে, লাইসেন্স পুনর্নবিকরণ করা হবে না। বাগড়ি মার্কেটের মতো বহুতল বাজারগুলিতে অর্থাৎ যেখানে বেশি মানুষ যাতায়াত করেন, সেখানে ৩ মাস অন্তর দমকলের মহড়া করতে হবে।”

আরও পড়ুন: আক্রান্ত দিলীপ ঘোষ, রথযাত্রার আগের দিন উত্তপ্ত কোচবিহার, রাস্তা অবরোধ কলকাতাতেও​

আরও পড়ুন: আইনশৃঙ্খলা নিয়ে আশঙ্কায় বিজেপির রথযাত্রার আবেদন খারিজ হাইকোর্টে, ফের শুনানি কাল​

বড়বাজার, পোস্তা বাজারের কথা মাথায় রেখে উত্তর বন্দর থানা এলাকায় একটি দমকল কেন্দ্র তৈরি কথা বলেন ফিরহাদ। যাতে ওই সব জায়গায় আগুন লাগলে, দ্রুত গঙ্গা থেকে জল এনে সমস্যার সমাধান করা যায়। মন্ত্রী বলেন, “হকার সমস্যাও দ্রুত মিটিয়ে ফেলা হবে। প্রতিটি ওয়ার্ডে হকার নম্বর ধরে নির্দিষ্ট করতে হবে কতজন হকার রয়েছে। এতে পুলিশের সহযোগিতাও দরকার। বেআইনি বহুতল নির্মান করলেও কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”