রেকর্ড পাশের হার। সর্বোচ্চ নম্বরের হারেও ইতিহাস গড়ল এ বারের মাধ্যমিক। ৯৮.৫৭ শতাংশ নম্বর পেয়ে এ বার প্রথম বাঁকুড়ার মেয়ে অন্বেষা পাইন। মেধা তালিকায় এক থেকে দশে আছে ৬৮ জন ছাত্রছাত্রী। এদের মধ্যে ৬১ জনই জেলার। জেলাগুলোর সাফল্যের দিকে দেখলে, মেধা তালিকায় সবচেয়ে বেশি ১৬টা স্থান দখল করেছে বাঁকুড়া। আর পাশের হারে সবার আগে পূর্ব মেদিনীপুর।

সম্পূর্ণ মেধা তালিকা নীচে দেওয়া হল...

• প্রথম: অন্বেষা পাইন (বিবেকানন্দ শিক্ষানিকেতন হাই স্কুল, বাঁকুড়া)। প্রাপ্ত নম্বর ৬৯০। 

 

•  যুগ্ম ভাবে দ্বিতীয়: মোজাম্মেল হক (বাঁকুড়া জেলা স্কুল), অনির্বাণ খাঁড়া (রামনগর নুটেবিহারী পাল চৌধুরী হাইস্কুল, হুগলি)। প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৯। 

• তৃতীয়: দীপ্তেশ পাল (রামপুরহাট জিতেন্দ্রলাল বিদ্যাভবন)। প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৮।

• চতুর্থ ছয় জন: চন্দ্রাণী কর্মকার (কামাখ্যাগুড়ি গার্লস হাইস্কুল, আলিপুরদুয়ার) , স্বপ্ননীল মিশ্র (রামকৃষ্ণ মিশন বিবেকানন্দ বিদ্যামন্দির, মালদহ), সায়ম কর্মকার (বাঁকুড়া জেলা স্কুল), সুবর্ণা দে (বিবেকানন্দ শিক্ষা নিকেতন হাইস্কুল, বাঁকুড়া), বিয়াস সরকার (মহারানি কাশীশ্বরী স্কুল, বহরমপুর), মহঃ মাসুম আখতার (সুন্দরবন আদর্শ বিদ্যামন্দির)। প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৭।

• পঞ্চম: সৃজা অধিকারী (রাজীবপুর হোলি ক্রস গার্লস হাই স্কুল), অরিত্র কুমার মণ্ডল (যাদবপুর বিদ্যাপীঠ, কলকাতা), শঙ্খ পাল (কোটাশূর হাই স্কুল, বীরভূম)। প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৬।


প্রথম স্থানাধিকারী অন্বেষা পাইন।

• ষষ্ঠ: ইশিকা সাহা (দিনহাটা গার্লস হাই স্কুল, কোচবিহার), সত্যম কর (যাদবপুর বিদ্যাপীঠ স্কুল), স্নেহাশিস কর গুপ্ত (রায়গঞ্জ করোনেশন হাই স্কুল, উঃ দিনাজপুর), প্রতীক্ষা কান্তি মণ্ডল (বাঁকুড়া জেলা স্কুল), নব্যেন্দু ঘটক (কামারপুকুর রামকৃষ্ণ মিশন মাল্টিপার্পাস স্কুল, হুগলি), শ্রমন জানা (চন্দননগর শ্রী অরবিন্দ বিদ্যামন্দির, হুগলি), স্বাগতালক্ষ্মী মণ্ডল (বাঁকুড়া গার্লস হাই স্কুল)। প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৫। 


যুগ্ম দ্বিতীয় স্থানাধিকারী মোজাম্মেল হক ও অনির্বাণ খাঁড়া।

• সপ্তম: অনাতপ মিত্র (জেনকিন্স স্কুল, কোচবিহার), শতাব্দী গুহ নিয়োগী (নিউটাউন গার্লস হাই স্কুল, কোচবিহার), বাসুদেব বসাক (ললিতমোহন আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়, বালুরঘাট), দীপেন্দু গড়াই (বিন্দুবসনী জুবিলি হাই স্কুল, সোনামুখী), রাহুল মান্না (বাঁকুড়া জেলা স্কুল), অনিন্দ্যসুন্দর শতপথী (বাঁকুড়া জেলা স্কুল), সুকান্ত কুণ্ডু (বড়জোড়া হাই স্কুল, বাঁকুড়া), জিষ্ণু পাল (বীরভূম জেলা স্কুল)। প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৪। 


দীপ্তেশ পাল। তৃতীয় স্থানাধিকারী।

•  অষ্টম: অন্বেষা দাস (আশালতা বসু বিদ্যালয়, জলপাইগুড়ি), শোভন দেব (রায়গঞ্জ করোনেশন হাই স্কুল, উঃ দিনাজপুর), সায়ন কুণ্ডু (মোরার সম্মিলনী হাই স্কুল, বাঁকুড়া), দিশা গোস্বামী (বিবেকানন্দ শিক্ষা নিকেতন হাই স্কুল, বাঁকুড়া), রূপকথা চন্দ (নবনালন্দা শান্তিনিকেতন হাই স্কুল, বীরভূম), শোভন মণ্ডল (কোটাশূর হাই স্কুল, বীরভূম), সায়ন্তিকা হুই (মেদিনীপুর মিশন গার্লস স্কুল), ঋষিতা মাইতি (মোঙলামারো মঙ্গলা অ্যাকাডেমি, পূঃ মেদিনীপুর), ঋতম নাথ ( কৃষ্ণনগর কলেজিয়েট স্কুল), মহঃ সায়ম সফিক (দেলুগ্রাম মানপুর বক্সির হাইস্কুল), সৌম্যদীপ চক্রবর্তী (বীরভূম জেলা স্কুল)। প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৩। 

আরও পড়ুন: পাইলট হওয়ার স্বপ্ন ছেড়ে ডাক্তারিই লক্ষ্য রেকর্ড গড়া মেয়ের

সামনের বছর কবে মাধ্যমিক, বলল না মধ্যশিক্ষা পর্ষদ

• নবম: অয়ন মজুমদার (ধূপগুড়ি হাই স্কুল, জলপাইগুড়ি), সায়ন্তন মুখার্জি (বিবেকানন্দ শিক্ষানিকেতন হাই স্কুল, বাঁকুড়া), সঙ্গীতা মণ্ডল (বিবেকানন্দ শিক্ষানিকেতন হাই স্কুল, বাঁকুড়া), অদৃতা দাস (চুঁচুড়া বালিকা বাণী মন্দির, হুগলি), স্বস্তিক পৌরাণিক (কাঁথি মডেল ইন্স্টিটিউশন, পূঃ মেদিনীপুর), স্নেহা সামন্ত (মহিষাদল গায়েশ্বরী গার্লস হাই স্কুল, পূঃ মেদিনীপুর), মৈনাক জানা (নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশন), ইশিকা বিশ্বাস (হাবড়া কামিনীকুমার গার্স হাই স্কুল, উঃ ২৪ পরগনা), দেবাঞ্জন সরকার (অশোকনগর বয়েজ সেকেন্ডারি স্কুল, উঃ ২৪ পরগনা), মধুমন্তী দে (সরস্বতী বালিকা বিদ্যালয় এবং শিল্প শিক্ষা সদন, কলকাতা), সৌম্যজিত্ বসাক (যাদবপুর বিদ্যাপীঠ), অনন্যা মণ্ডল (পাতিরাম বিবেকানন্দ গার্লস হাই স্কুল), সায়ন পান (রামকৃষ্ণ মিশন সারদা বিদ্যাপীঠ হাই স্কুল)। প্রাপ্ত নম্বর ৬৮২।

• দশম: ঐশিকা সরকার (বালুরঘাট গার্লস হাই স্কুল, দঃ দিনাজপুর), তথাগত মুখার্জি (জয়পুর হাই স্কুল, বাঁকুড়া), ঋষন্ত পাল (বাঁকুড়া জেলা স্কুল), রাকেশ দে (সাঁইথিয়া টাউন হাই স্কুল), অর্ধেন্দু মৌলী ঘোষ (মেমারি বিদ্যাসাগর মেমোরিয়াল ইন্সটিটিউশন, বর্ধমান), শেখ আফ্রিদি (বর্ধমান মিউনিসপ্যাল হাই স্কুল), কল্যাণ নন্দী (শ্যামবাজার গোপালচন্দ্র সেন হাই স্কুল), অনীক ভৌমিক (চন্দননগর দুর্গাচরণ রক্ষিত বঙ্গ বিদ্যালয়, হুগলি), সুরজিত্ সাউ (মহিষাদল রাজ হাইস্কুল, পূঃ মেদিনীপর), ঐশিকা চক্রবর্তী (আরংঘাটা গার্স হাইস্কুল, নদিয়া), শুভদীপ দে (নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশন বিদ্যালয়), অয়ন মজুমদার (বারাসত প্যারীচরণ সরকার গভঃ হাইস্কুল, উঃ ২৪ পরগনা), দীপপ্রকাশ বসু (বরানগর রামকৃষ্ণ মিশন আশ্রম হাইস্কুল), আব্দুল মালেক খান (পাইকপারি হাই স্কুল, দঃ ২৪ পরগনা), কুন্তল দাস (শিবপুর বিই কলেজ মডেল হাই স্কুল, হাওড়া), রৌনক চন্দ্র (হাওড়া জেলা স্কুল)। প্রাপ্ত নম্বর ৬৮১।


মৈনাক জানা। নবম স্থানাধিকারী।

• এ বছর প্রথম দশে রয়েছেন ৬৮ জন। 

• পাশের হারে প্রথম পূর্ব মেদিনীপুর (৯৬.০৬%)

• দক্ষিণ ২৪ পরগনায় পাশের হার ৯০.৫৬%

• পশ্চিম মেদিনীপুরে পাশের হার ৯০.৩৮%

• কলকাতায় পাশের ৮৮.৯৩%

• এ বার  মোট পাশের হার ৮৫.৬৫%

• নদিয়ায় পাশের হার ৮২.৩০%

এ বারের মাধ্যমিক পরীক্ষা শেষের ৮৫ দিনের মাথায় ফল প্রকাশিত হল। মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১০ লক্ষ ৬১ হাজার ১২৩ জন। ছাত্র পরীক্ষার্থী ৪ লক্ষ ৭৩ হাজার ৬৯ জন। এবং ছাত্রী ৫ লক্ষ ৮৭ হাজার ৬৪৯ জন। ছাত্র পরীক্ষার্থীর তুলনায় ছাত্রী পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১০.৭৬ শতাংশ বেশি। গত বছরে এটা ছিল ৯.১৮ শতাংশ। 


শুভদীপ দে। দশম স্থানাধিকারী।

এ দিন সকাল ন’টায় সাংবাদিক বৈঠক ডেকে পশ্চিমবঙ্গ মধ্যশিক্ষা পর্ষদ ফল ঘোষণা করে। সকাল ১০টায় মার্কশিট বিতরণ করা হয়। ফল জানা যাবে ওয়েবসাইট ও এসএমএস-এর মাধ্যমে। গত বছরে পাশের হার ছিল ৮২.৭৪%। ছেলেদের পাশের হার ছিল ৮৩.৫৬%। এবং মেয়েদের পাশের হার ছিল ৮৩.৯৩%। 

যে ওয়েবসাইটগুলোর মাধ্যমে ছাত্র-ছাত্রীরা ফলাফল জানতে পারবেন-

www.wbbse.org

wbresults.nic.in

www.exametc.com

www.indianresults.com

মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের সাফল্যে টুইট করে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

www.knowyourresults.com

www.examresults.in

www.schools9.com

এসএমএস-এর মাধ্যমে ফল জানতে হলে wb <স্পেস> রোল নম্বর টাইপ করে পাঠিয়ে দিতে হবে ৫৪২৪২, ৫৬৭৬৭৫০, ৫৮৮৮৮, ৫৬২৬৩ নম্বরে। 

www.exametc.com ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ফলাফল জানার বিশেষ সুবিধা রয়েছে। আগে থেকে রোল নম্বর ও মোবাইল নম্বর রেজিস্টার করে রাখলে ফল ঘোষণার পর এসএমএস-এ জানিয়ে দেওয়া হবে রেজাল্ট।