• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ধাওয়া করে চোর ধরলেন যুবক

Soumik
সৌমিক মুখোপাধ্যায়

যে কাজ করার কথা পুলিশের, জীবন বাজি রেখে সেই কাজই করে দেখালেন এক যুবক। স্কুটার আরোহী দুই দুষ্কৃতী মোবাইল ছিনতাই করে পালানোর সময়ে প্রায় তিন কিলোমিটার তাড়া করে তাদের এক জনকে হাতেনাতে ধরে ফেললেন তিনি। পুলিশ এসে ওই ছিনতাইবাজকে গ্রেফতার করে। ধৃতের কাছ থেকে উদ্ধার হয় চারটি মোবাইল।

পুলিশ জানায়, রবিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়ার জগাছা থানা এলাকার মহিয়াড়ি রোডে। রাত ৮টা নাগাদ জগাছা ইলেকট্রিক সাপ্লাই অফিসের সামনে দিয়ে মোটরবাইক নিয়ে যাচ্ছিলেন এলাকার বাসিন্দা সৌমিক মুখোপাধ্যায়। সেই সময়ে সামনের একটি টোটো থেকে ‘চোর চোর’ চিৎকার শুনতে পান তিনি। দেখেন, টোটোর সামনে একটি স্কুটারে চেপে যাচ্ছে দুই যুবক। স্কুটারের গতি ক্রমশ বাড়ছে। টোটোর এক যাত্রী চিৎকার করে দুই স্কুটার-আরোহীর দিকে আঙুল দেখিয়ে বোঝানোর চেষ্টা করছেন, তাঁর মোবাইল ছিনতাই করে পালাচ্ছে তারা।

কী ঘটেছে বুঝেই সৌমিক নিজের মোটরবাইকের গতি বাড়িয়ে তাড়া করেন দুই ছিনতাইবাজকে। প্রায় তিন কিলোমিটার ধাওয়া করার পরে তিনি সজোরে ধাক্কা মারেন ওই স্কুটারে। নিজেও পড়ে যান। হাতে-পায়ে চোট পান। তা সত্ত্বেও কোনও রকমে উঠে দুষ্কৃতীদের এক জনকে ধরে ফেলেন তিনি। তাঁকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসেন এলাকার বাসিন্দারা। 

কিন্তু এতটা ঝুঁকি নিলেন কেন? দুষ্কৃতীরা যদি সশস্ত্র হত? সৌমিকের জবাব, ‘‘অন্যের বিপদে পাশে দাঁড়ানোর শিক্ষাটা আমি আমার পরিবার থেকে পেয়েছি। এমন ঘটনা আবার ঘটলে আবার ঝাঁপিয়ে পড়ব।’’

পরে পুলিশ এসে ওই ছিনতাইবাজকে গ্রেফতার করে। তার কাছে মেলে চারটি মোবাইল। পুলিশের ধারণা, চারটি মোবাইলই চুরি করা। ধৃতকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পলাতক আর এক দুষ্কৃতীর খোঁজ করছে পুলিশ।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন