দাম্পত্যে অসুখ। স্বামী ব্যর্থ মিউজিশিয়ান আর স্ত্রী ফোটোগ্রাফার। স্বামীর মহিলা-আসক্তি নিয়ে তিনি বিধ্বস্ত। কিন্তু স্বামীকে ছেড়ে যেতে পারেন না। একঘেয়ে মডেলের ছবি তুলতে তুলতে পথে দেখা এক রূপান্তরকামীর সঙ্গে। ঠিক করে ফেলেন, আর সুন্দরী মডেল নয়, রূপান্তরকামীর ছবি তুলবেন। আর ছবি তুলতে গিয়েই যত বিপত্তি! অজান্তেই খুনের রহস্য-রাজ্যে প্রবেশ করে মেয়েটি। খুনের সমাধানে পৌঁছে দেয় তার তোলা ছবি। অর্ফিউস মুখোটীর প্রথম ছবি ‘এই শহরে’র মধ্যে যেন অ্যান্টনিওনির ‘ব্লো আপ’-এর সুর। অর্ফিউস বললেন, ‘‘ ‘ব্লোআপ’ নিশ্চই রেফারেন্স হিসেবে কাজ করেছে। তবে এখানে মার্ডার মিস্ট্রির গল্পটা আলাদা।’’

ফেলুদা বা রুদ্র সেন নয়। অনেক দিন পরে গোয়েন্দা পুলিশ অফিসারের চরিত্রে সব্যসাচী চক্রবর্তী। বললেন, ‘‘এই ছবিতে খুব উত্তেজক দৌড়ঝাঁপ করা গোয়েন্দা নই আমি। অফিসে বসেই প্রশ্নের জালে তদন্তের কিনারায় পৌঁছে যাই। আসলে অর্ফিউসের অনুরোধেই কাজটা করলাম।’’ সব্যসাচী ছাড়াও টেলিভিশনের পরিচিত মুখ অনিন্দিতা সরকার, ‘বিগ বস’-এর কাইস কলিম এই ছবিতে কাজ করছেন। নবাগত সায়ন-প্রতীকের সুরে ছবিতে বেশ কিছু গান থাকছে।

কলকাতা আর জয়নগর ছাড়া দিঘাতেও শ্যুট হয়েছে ছোট বাজেটের এই ছবির।