চেনা ছকেই শুরু হয় গল্প। গরিব ঘরের সাদাসিধে ছেলে নূর (আদৃত)। জাহানারা (পূজা) ধনী ঘরের স্মার্ট মেয়ে। কলেজপড়ুয়া এই দু’জনের প্রেমে পড়া নিয়ে এগোতে থাকে গল্প। অভিমন্যু মুখোপাধ্যায়ের প্রথম ছবি। নায়ক-নায়িকার জুটিও নতুন।

কলেজপড়ুয়া নূর ও জাহানারার প্রেমে বাধা হয়ে দাঁড়ায় নায়িকার পরিবারের রাজনৈতিক পরিচয়। বাধা কাটাতে শহরে পালাতে হয় তাদের। ছবির প্রথমার্ধ জুড়ে রয়েছে সেই গল্পই। তার পর শহরে পালিয়ে এসে টিকে থাকার লড়াই আর পরিণতি। ছবির গল্পে মোচড় আনারও চেষ্টা রয়েছে। কিন্তু তা সবক্ষেত্রে সফল হয়েছে, সেটা বলা যায় না। তবে নতুন জুটির অভিনয়ের চেষ্টা রীতিমতো প্রশংসার দাবি রাখে। জাহানারার মা আমিনা বেগমের চরিত্রে রয়েছেন অপরাজিতা আঢ্য। তাঁর অভিনয় মুগ্ধ করে দেয়।

নূর জাহান

পরিচালনা: অভিমন্যু মুখোপাধ্যায়

অভিনয়: আদৃত, পূজা চেরি,
অপরাজিতা আঢ্য

৪/১০

পরিচালক শক্ত ভিতে গল্পকে দাঁড় করানোর চেষ্টা করেছেন। তবুও নানা জায়গায় তা নড়বড়ে। নূরের  সঙ্গে পালানোর জন্য স্টেশনে আসে জাহানারা। যেখানে মায়ের সূত্রে এলাকার সকলেই তাকে চেনে, সেখানে দিনের বেলায় সকলের চোখ এড়িয়ে স্টেশনে আসতে পারাটা একটু অস্বাভাবিক লাগে। দ্বিতীয়ার্ধে এক পুলিশ অফিসারের চাপে বাধ্য হয়ে অপরাধ জগতে ঢুকতে হয় নূরকে। কিন্তু তার জন্য ওই অফিসার যে ছক সাজায়, তা শিশুসুলভ। ছবির শেষ দিকে শান্তশিষ্ট নায়ক জীবনে প্রথম বার বন্দুক ধরে কী ভাবে নির্ভুল নিশানায় পরপর গুলি চালাতে পারে, সেটাও প্রশ্ন। প্রথম ভাগে ছবির গল্প ঢিমেতালে এগিয়েছে। দ্বিতীয় ভাগে দ্রুত। গতির সঙ্গে তাল মেলাতে বেগ পেতে হয় দর্শককেও।

হল থেকে বেরোনোর পর ছবির টাইটেল ট্র্যাকের রেশ কিছুক্ষণ মনে থাকলেও, বাকি গানের ব্যবহার তেমন উল্লেখযোগ্য নয়। সব মিলিয়ে পরিচালকের প্রচেষ্টা থাকলেও তা তেমন ভাবে দাগ কাটল না।