বুধবার, মুম্বইয়ে লঞ্চ করা হল বহু প্রতীক্ষিত ছবি ‘বীরে দি ওয়েডিং’-এর ট্রেলার। অনুষ্ঠানে ছিলেন ছবির চার অভিনেত্রী করিনা কপূর, সোনম কপূর, স্বরা ভাস্কর এবং শিখা তালসানিয়া। ছবির পরিচালনায় শশাঙ্ক ঘোষ। তবে ছবি নিয়ে যত না চর্চা, ট্রেলার লঞ্চের সাংবাদিক বৈঠকে তার চেয়ে অনেক বেশি জল্পনা চলল আনন্দ আহুজার সঙ্গে সোনমের আসন্ন বিয়ে নিয়ে। এই নিয়ে সেখানে সোনমকে প্রশ্নও করা হয়। উত্তরটা অবশ্য যথারীতি এড়িয়ে গেলেন তিনি, ‘‘আমার বিয়ে সম্পর্কে যা কিছু তথ্য সকলে একদম ঠিক সময়ে জানতে পারবেন। আমার গোটা কেরিয়ারে মিডিয়ার সঙ্গে সব সময় ভাল সম্পর্ক বজায় রেখেছি। ভবিষ্যতেও এমনটাই থাকবে। এই মুহূর্তে আমরা শুধু ‘বীরে দি ওয়েডিং’ নিয়েই কথা বলব।’’

বিয়ে নিয়ে সোনম কথা না বললেও গুঞ্জন চলছেই। প্রথমে কথা হয়েছিল ২৯ এবং ৩০ এপ্রিল— এই দু’দিন হবে বিয়ের অনুষ্ঠান। কিন্তু এই সময়টায় মুম্বইয়ে নিরাপত্তা নিয়ে কিছু সমস্যা হওয়ায় ওই দুই দিন বাতিল করা হয়েছে। এখন শোনা যাচ্ছে, সোনমের বিয়ে হবে ৭ এবং ৮ মে। প্রথমে এ-ও শোনা গিয়েছিল, সুইৎজারল্যান্ডের বুটিক রিসর্টে বিয়েটা সারবেন সোনম এবং আনন্দ। অনিল কপূর নিজে মেয়ের বিয়ের নিমন্ত্রণ করতে শুরুও করে দিয়েছিলেন আত্মীয়-পরিজনকে। তবে সোনম এবং আনন্দ পরে সিদ্ধান্ত নেন, বিদেশে গিয়ে বিয়ে করে শুধু শুধু সময় এবং টাকা নষ্ট করার মানে হয় না। হাজার হোক, লেস ইজ় মোর! এটাও শোনা গিয়েছে যে, শ্রীদেবীর মৃত্যুর পর বিয়েটা হচ্ছে বলে কপূর পরিবারের সদস্যরাও চান না অতিরিক্ত জাঁকজমক করতে। বিয়ের নিয়মকানুন সম্পর্কেও কপূর পরিবার সংবাদমাধ্যমকে কিছু জানায়নি। 

বুধবার, সাংবাদিক বৈঠকে সোনমকে জিজ্ঞেস করা হয়, বিয়ে বললেই তাঁর চোখের সামনে কী ভেসে ওঠে। সোনম বলেন, ‘‘আমার দুই ভাই অক্ষয় এবং মোহিত দু’জনের বিয়েতেই আমরা সকলে খুব মজা করেছি। ভাল ভাল খাবার খাওয়াটাই আমাদের পরিবারে বিয়ের নিয়ম! সকলে একসঙ্গে হলে এমনিতেই অনেক মজা হয়। তবে বর আর কনে তেমন মজা করতে পারে না...’’ একই প্রশ্ন বৈঠকে উপস্থিত করিনা কপূরকে করা হলে তিনি অবশ্য ঠাট্টা করে বলেছেন, ‘‘বিয়ে বললেই এখন আমার চোখের সামনে সোনমের বিয়ের খবর ভাসে!’’ 

শোনা যাচ্ছে, আনন্দ কপূর নটিংহিলে নতুন একটি বিলাসবহুল বাড়ি কিনে ফেলেছেন হবু স্ত্রীর জন্য। লন্ডনে অবশ্য তাঁদের আর একটি বাড়িও আছে। বিয়ের পর মিসেস আহুজা, ওরফে সোনম দিল্লি, মুম্বই এবং লন্ডনে সময় ভাগাভাগি করে থাকবেন।