চ্যালেঞ্জ দু’তরফেই। পরিচালকের দাবি মেনে ছবির চরিত্র হয়ে ওঠা যদি মিমি চক্রবর্তীর কাছে চ্যালেঞ্জ হয়, তা হলে সেই চরিত্রকে সাজিয়ে তোলা অরিন্দম শীলের কাছেও একটা বড় দায়িত্ব। 

পরিচালকের আগামী ছবিতে মুখ্য ভূমিকায় মিমি। তিনি এত দিন যে ধরনের চরিত্র করেছেন, এ ছবি তার চেয়ে আলাদা। ডিগ্ল্যাম লুক তো বটেই, তার চেয়েও কঠিন চরিত্রের সব পরতগুলো ফুটিয়ে তোলা। মিমিকে দেওয়া ছবির চিত্রনাট্যে অভিনেত্রীর উদ্দেশে একটি নোট লিখেছেন অরিন্দম, ‘আমার বিশ্বাস তুই তোর জীবনের শ্রেষ্ঠ অভিনয়টা এই ছবিতেই করবি। আমার বিশ্বাস কখনও ভুল হয় না।’ সেই লেখার ছবি পোস্ট করেছেন মিমি। 

‘‘যে কোনও অভিনেত্রীর কাছে এই চরিত্রটা বড় চ্যালেঞ্জ,’’ বলছিলেন অরিন্দম। কোমা থেকে জেগে ওঠা একজন মহিলা, যার কোনও স্মৃতি নেই। বর্তমান, দুঃস্বপ্ন, আবছা অতীত...সব কিছু গুলিয়ে যাচ্ছে! এর থেকে জীবনের সত্যিটা বার করে আনতে হবে। এমনই একটা চরিত্রে মিমিকে দেখা যাবে বলে জানালেন পরিচালক। চরিত্রের নাম ঊর্মি। ছবির জন্য মিমির একেবারে সাদামাঠা লুক নির্ধারিত হয়েছে। এর আগেও ডিগ্ল্যাম লুকে দেখা গিয়েছে তাঁকে। কিন্তু এই ছবির মতো মলাট চরিত্র খুব বেশি পাননি তিনি। সুতরাং এ বার সত্যিই কঠিন পরীক্ষায় বসতে চলেছেন অভিনেত্রী। পরিচালক জানালেন, ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহ থেকেই শুটিং শুরু হচ্ছে। ছবির নাম এখন চূড়ান্ত হয়নি। মিমির স্বামীর চরিত্রে অনির্বাণ ভট্টাচার্য।