সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

চল্লিশ পার? নিজেকে ভালবাসুন এ বার

চল্লিশে নয় চালশে। বরং রোজের রুটিনে একটু অদল বদল করেই দেখুন না। দেখবেন চুল, চোখ, ত্বকের সঙ্গে ফিরছে মনের জেল্লাও! সেই রহস্য খোলসা করলেন মহুয়া গিরি

Monalisha

রাজমাতা গায়ত্রী দেবী এক বার রসিকতা করে বলেছিলেন, ‘‘আমি রোজ এক বোতল মদ্যপান করি। আর চুল কালো রাখতে জুতোর কালি মাখি। এটাই আমার সৌন্দর্যের গোপন রহস্য!’’ গায়ত্রীদেবীর মতো রূপ নিয়ে তো সবাই জন্মায় না। তা ছাড়া বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে রূপের জৌলুসও কী ভাবে যেন ফিকে হয়ে যায়। আগে তো ঠাট্টা করে মেয়েদের বলা হত, কুড়ি পেরোলেই বুড়ি। আজকাল অবশ্য ধারণাটা বদলে গিয়েছে। পাল্টে গিয়েছে সৌন্দর্যের সংজ্ঞা। ঠিক মতো খাওয়াদাওয়া, রোজ একটু ব্যায়াম, আর প্রয়োজনমতো চুল-ত্বকের যত্ন— এই তিনের জোরেই চল্লিশ পেরিয়েও আপনি বলতে পারেন, এজ ইজ জাস্ট আ নাম্বার। ইয়ং ইজ আ ফিলিং!

বয়সকে আটকে দেওয়ার ফিকির তো কবে থেকেই আঁটছে মানুষ। শোনা যায়, মিশরের রানি ক্লিওপেট্রা যৌবন ধরে রাখতে নাকি গাধার দুধে স্নান করতেন! আবার নুরজাহানের বিউটি সিক্রেট ছিল গোলাপের পাপড়ি থেকে নিষ্কাষিত তেল। ভারতীয় রাজনীতির ‘আয়রন লেডি’ ইন্দিরা গাঁধী পছন্দ করতেন বিশেষ ধরনের হার্বাল ময়শ্চারাইজার। শোনা যায়, রজনীগন্ধা ফুলের নির্যাস থেকে তৈরি ওই ময়শ্চারাইজার মিসেস গাঁধীর কথা ভেবেই তৈরি করা হতো। আপনি অবশ্য চাইলে বাড়িতেই দুধ, মধুর মতো কিছু হাতের-কাছের-টুকিটাকি দিয়ে বানিয়ে নিতে পারেন চটজলদি ঘরোয়া রূপটান।

চল্লিশের পরই সাধারণত মেনোপজ আসে মহিলাদের। তখন হরমোনের খেলায় ত্বকে তৈলাক্ত ভাব কমতে থাকে। পেটে জমে চর্বি। আর যে হারে চুল পড়ে, তা তো রীতিমতো আতঙ্কের। চামড়ায় বলিরেখা, দাগ, ছোপ এ সবের আঁকিবুঁকিতে শেষমেশ দেখা

যায়, আত্মবিশ্বাসটাই তলানিতে এসে ঠেকে।

তা হলে উপায়?

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, চল্লিশের পর নিয়ম করে কিছু নিয়ম মানুন। বয়সটাকে তো আর আটকানো যাবে না। তবে বুড়িয়ে যাওয়া ঠেকানো যাবে অনেকটাই।

ভিটামিন ভুলবেন না

চকচকে চুল আর ঝলমলে ত্বকের জন্য প্রচুর ভিটামিন সি চাই। খাবারে লেবু জাতীয় ফল, ফিশ অয়েল ট্যাবলেট রাখুন চিকিৎসকের পরামর্শ মতো। আর হ্যাঁ, এমনিতেই ক্যালশিয়াম ঘাটতিতে ভোগেন বেশির ভাগ মহিলাই। চল্লিশের পর তাই রোজের মেনুতে ক্যালশিয়াম সমৃদ্ধ খাবার রাখুন। অফিস বা বাড়িতে কাজের যতই তাড়া থাকুক না কেন, ব্রেকফাস্ট মিস করবেন না। লাঞ্চের তালিকায় প্রোটিন জাতীয় খাবার, শাক-সবজির পাশাপাশি নিয়মিত টক দই রাখুন। সঙ্গে পর্যাপ্ত জল।

 

৩০ মিনিটে ফিট

জিমে গিয়ে ঘেমে-নেয়ে ঘণ্টা দুয়েক না কাটালেও চলবে। আধ ঘণ্টা হালকা ব্যায়াম, যোগাসনে সচল রাখুন শরীরকে। শুধু মনে রাখবেন, ব্যায়ামটা নিয়মিত করতে হবে। তাতে শরীর-মন চনমনে তো থাকবেই। আয়ত্তে থাকবে ব্লাড সুগার, প্রেশারও। পাশাপাশি কোমর, হাত, পায়ের ব্যথায় আরাম হবে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই বয়সে ভারী ব্যায়াম নয়। তার বদলে হালকা কিছু করুন। যেমন, সাঁতার কাটুন। সাইকেল চালান। কিংবা শুধুই জগিং।

স্টাইলে বাঁচুন

পোশাক বা জুতো কেনার ক্ষেত্রে আরও সতর্ক হোন। আপনার পছন্দের জুতো স্টিলেটো হতেই পারে। কিন্তু শরীরের কথা মাথায় রেখে এ বার কম হিলের আরামদায়ক জুতো বাছুন। একটু ঢাকা অথচ সঠিক মাপের পোশাক বাছুন। তাতে শরীরে বয়সের ছাপ অনেকটাই ঢাকা পড়বে। রং বাছাইয়ের ক্ষেত্রেও সতর্ক হোন। মনে রাখবেন, নিজেকে সুন্দর দেখাতেই পোশাক পরছেন, কমবয়সি দেখানোর জন্য নয়। সাজে চমক আনতে অন্য রকম হেয়ারস্টাইল করে দেখতে পারেন। খোঁপা বা বিনুনির বদলে মুখের সঙ্গে মানিয়ে ছোট করে চুল ছাঁটুন। শাড়ি বা সালোয়ারেও আপনাকে ব্যক্তিত্বময়ী লাগবে। আবার পাতলা হয়ে আসা চুলের বিড়ম্বনাও ঢাকা যাবে। আর হ্যাঁ, সাদা হয়ে আসা চুলে মোটেই কুচকুচে কালো বা কোনও গাঢ় রং করাবেন না। ত্বকের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে হানি, লাইট ব্রাউনের মতো হালকা রঙ বাছুন। তা কিন্তু আপনার ব্যক্তিত্বে আভিজাত্য আনবে।

ঘুম জরুরি

‘বিউটি স্লিপ’-এর ধারণাটা কিন্তু নেহাত ফেলনা নয়। কুড়ি বছর বয়সে কয়েকটা রাত জাগলেও দেখে বোঝার জো থাকে না। কিন্তু চল্লিশের পর একটা রাত ঠিকমতো না ঘুমোলেই চোখের তলায় কালি আর মুখে ক্লান্তির ছাপ। তা ছাড়া নানা কারণে এই বয়সে অনেকেরই ঘুম কমে আসে। চেষ্টা করুন, রাতে তাড়াতাড়ি শুয়ে পড়তে। দুপুরে খাওয়ার পর টিভি না দেখে একটু বিশ্রাম নিন। কর্মরতা হলে বাড়ি ফিরেই সংসারের কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়বেন না।

নিজের জন্য একটু বাঁচুন এ বার| একঘেয়ে রুটিন ছেড়ে মাঝে মাঝে বেরিয়ে পড়াটা কিন্তু মন্দ নয়। জমিয়ে আড্ডা দিন। প্রাণ খুলে হাসুন। সব বয়সেরই তো আলাদা রকমের মৌতাত আছে। আসুন না, চল্লিশের পর বরং নিজেকে নতুন করে আবিষ্কার করি।

 

 

 

মডেল: মোনালিসা

মেকআপ: জিতেন্দ্র মাহাতো

লোকেশন: আইভি হাউস

ছবি: দেবর্ষি  সরকার

 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন