Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

জ্বলে না আলো, সন্ধ্যায় ‘দুষ্কৃতী ডেরা’ ডিহি পার্ক

রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে এই পার্ক বর্তমানে ব্যবহারের অনুপযুক্ত। এলাকাবাসীর অভিযোগ, সন্ধ্যা নামলেই পার্ক ‘দুষ্কৃতী’দের ডেরায় পরিণত হয়।

নিজস্ব সংবাদদাতা
পাণ্ডবেশ্বর ০৩ নভেম্বর ২০১৮ ০৭:১০
Save
Something isn't right! Please refresh.
রাস্তা আটকে গাছ। নিজস্ব চিত্র

রাস্তা আটকে গাছ। নিজস্ব চিত্র

Popup Close

নয়ের দশকে পাণ্ডবেশ্বরের কুমারডিহি গ্রাম সংলগ্ন এলাকায় তৈরি হয়েছিল ‘ডিহি পার্ক’। ১৫ একরের বেশি জায়গায় এই পার্কটি তৈরি করেছিলেন ইসিএলের বাঁকোলা এরিয়া কর্তৃপক্ষ। কিন্তু রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে এই পার্ক বর্তমানে ব্যবহারের অনুপযুক্ত। এলাকাবাসীর অভিযোগ, সন্ধ্যা নামলেই পার্ক ‘দুষ্কৃতী’দের ডেরায় পরিণত হয়।

কুমারডিহি, বাঁকোলা, জোয়ালভাঙা-সহ সাতটি গ্রাম এবং ন’টি কোলিয়ারি এলাকার বাসিন্দাদের কাছের পার্ক বলতে এই ডিহিপার্ক। এই পার্ক চত্বরে একটি সাংস্কৃতিক ম়ঞ্চ রয়েছে। কিন্তু সেখানে যাওয়ার পথে দীর্ঘদিন ধরে গাছ পড়ে রয়েছে। পার্কের প্রবেশদ্বারের কাছে নিরাপত্তরক্ষীর জন্য একটি ঘর থাকলেও তাতে সব সময় তালা দেওয়া আছে। পার্কের ভিতরে বসার জন্য বাঁধানো জায়গা আছে। কিন্তু চারপাশে আগাছা সাফাই না হওয়ায় সেখানে কেউ বসতে পারেন না। শিশুদের খেলাধুলোর সামগ্রী রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে ভেঙে গিয়েছে। সৌন্দর্যায়নের জন্য ইসিএল পার্ক জুড়ে বৃক্ষরোপণ করেছে। তবে আগাছা ও আবর্জনা সাফাই না হওয়ায় এক প্রকার জঙ্গলে পরিণত হয়েছে পার্কটি। নেই আলোর ব্যবস্থাও।

বাসিন্দাদের অভিযোগ, আলোর না থাকায় অন্ধকার নামার আগেই পার্ক ছেড়ে চলে যেতে হয়। কারণ, অন্ধকারে পার্কটি দুষ্কৃতীদের দখলে চলে যায়। কুমারডিহির বাসিন্দা রিঙ্কু বন্দ্যোপাধ্যায়ের অভিযোগ, ‘‘পার্কের গাছ কেটে পাচারও করছে দুষ্কৃতীরা।’’ বাঁকোলার বাসিন্দা তথা ছোড়া পঞ্চায়েত সদস্য উজ্জ্বল বাউরি, নবগ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য সঞ্জীব মণ্ডল, কুমারডিহি ‘বি’ কোলিয়ারির কর্মী ইন্দ্রপাল ঠাকুরের দাবি, ‘‘পার্ক দেখভালের জন্য ইসিএল ও পঞ্চায়েত সমিতির যৌথ উদ্যোগে অবিলম্বে একটি কমিটি গঠন করা দরকার।’’

Advertisement

পাণ্ডবেশ্বর পঞ্চায়েত সমিতির পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ কিরীটী মুখোপাধ্যায় জানান, পঞ্চায়েত সমিতি ও ইসিএলের যৌথ উদ্যোগে বাঁকোলা সুভাষ কলোনিতে ‘কিচির মিচির’ উদ্যান তৈরি করা হচ্ছে। ডিহি পার্ক থেকে দেড় কিলোমিটার দূরে লাল বংলোয় ইসিএলের শোনপুরবাজারি প্রকল্প সংলগ্ন এলাকায় কৃত্রিম পাহাড়কে (খোলামুখ খনির উপরিভাগের ফেলে দেওয়া মাটি ও পাথর জমে তৈরি হওয়া উঁচু জায়গা) ঘিরে ‘পাণ্ডবেশ্বর-দার্জিলিং’ নামে উদ্যান তৈরির প্রস্তুতি নিয়েছে বর্ধমান জেলা পরিষদ। কিরীটীবাবু বলেন, “ইসিএল ও সাধারণ মানুষের টাকায় ডিহিপার্কের ভিতরে প্রয়াত শ্রমিক নেতা চন্দ্রশেখর বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামে একটি সাংস্কৃতিক মঞ্চ তৈরি করেছে নবগ্রাম পঞ্চায়েত। পার্কের সৌন্দর্যায়ান ও রক্ষণাবেক্ষণে জেলাপরিষদ উদ্যোগ নিলে সমস্যা মিটে যাবে। মঞ্চটিও স্থানীয় ক্লাবগুলি ব্যবহার করতে পারবে।”



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement