Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৪ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

দাবি আদায়ে পথে তা‌ণ্ডব অ্যাপ-ক্যাব চালকদের

গাড়ির গায়ে অ্যাপ-ক্যাবের স্টিকার বা ভিতরে মোবাইলে জিপিএস চালু রয়েছে দেখলেই তেড়ে যাচ্ছিলেন একদল যুবক। মুখে ‘মার মার’ চিৎকার।

নিজস্ব সংবাদদাতা
২৮ ডিসেম্বর ২০১৮ ০০:৩১
Save
Something isn't right! Please refresh.
ধুন্ধুমার: অ্যাপ-ক্যাব ঘিরে ধরে তাণ্ডব। বৃহস্পতিবার, রুবি মোড়ের কাছে। নিজস্ব চিত্র

ধুন্ধুমার: অ্যাপ-ক্যাব ঘিরে ধরে তাণ্ডব। বৃহস্পতিবার, রুবি মোড়ের কাছে। নিজস্ব চিত্র

Popup Close

গাড়ির গায়ে অ্যাপ-ক্যাবের স্টিকার বা ভিতরে মোবাইলে জিপিএস চালু রয়েছে দেখলেই তেড়ে যাচ্ছিলেন একদল যুবক। মুখে ‘মার মার’ চিৎকার। বনেটে, জানলায় চাপড় মেরে গাড়ি থামিয়ে টেনে-হিঁচড়ে নামানো হচ্ছিল চালকদের। বাদ যাচ্ছিলেন না যাত্রীরাও। তাণ্ডবের মুখে পড়ে অনেক যাত্রীকে হাতজোড় করে বলতে হল, ‘‘আমাদের কী দোষ! আমাদের সঙ্গে কেন এ রকম করছেন?’’ তাতে তর্জন-গর্জন কয়েক গুণ বাড়িয়ে তাণ্ডবকারীরা বললেন, ‘‘অনলাইনে ক্যাব বুক করে গাড়িতে উঠেছেন কেন? আপনারাই অপরাধী!’’

দাবি আদায়ের নামে বৃহস্পতিবার অ্যাপ-ক্যাব চালকদের এমনই তাণ্ডব দেখা গেল রাস্তায়। বিমানবন্দরের উদ্দেশে রওনা দেওয়া যাত্রীদের তো বটেই, হেনস্থা করা হল হাসপাতালমুখী রোগীদেরও। জোর করে দাঁড় করানো অ্যাপ-ক্যাবের পিছনে দাঁড়িয়ে পড়ল একের পর এক বাস। সেই জটে আটকে প্রবল ভোগান্তিতে পড়লেন বহু মানুষ। আটকে গেল বেশ কিছু অ্যাম্বুল্যান্স। এর পরেই দ্রুত আসরে নামে পুলিশ। গাড়ি থামিয়ে তাণ্ডব চালানোর অভিযোগে পাঁচ জনকে গ্রেফতার করে কসবা থানা। ওই থানার দায়িত্বপ্রাপ্ত এক পুলিশ আধিকারিককে বলতে শোনা যায়, ‘‘রাস্তায় নেমে এই ধরনের গুন্ডামি বরদাস্ত করা হবে না। আপনারা এটা করতে পারেন না। থানায় চলুন।’’

একই ঘটনা ঘটে বুধবার রাতেও। রাস্তায় তাণ্ডব চালানোর অভিযোগে ভিআইপি রোডের গোলাঘাটার কাছ থেকে আট জনকে গ্রেফতার করে লেক টাউন থানার পুলিশ। সেই সময়েও চরম ভোগান্তি পোহাতে হয় যাত্রীদের। এক যাত্রীর ক্ষোভ, ‘‘অ্যাপ-ক্যাবের নিজেদের গন্ডগোলের জন্য আমরা ভুগব কেন? এ ভাবে আতঙ্কে পড়তে হবে ভাবিনি।’’

Advertisement

লভ্যাংশের সঠিক বণ্টন-সহ একাধিক দাবিদাওয়া নিয়ে অ্যাপ-ক্যাব সংস্থাগুলির বিরুদ্ধে বেশ কয়েক দিন ধরেই পরিবহণ দফতরে অভিযোগ জানাচ্ছিলেন চালকেরা। তাঁদের দাবি, কোনও অভিযোগ পেলেই ক্যাব সংস্থা চালকদের আইডি ‘ব্লক’ করে দিচ্ছে। ফলে কাজ করতে পারছেন না বহু চালক। ভাড়া না পাওয়ায় গাড়ির কিস্তির মাসিক টাকাও উঠছে না। সম্প্রতি এ নিয়ে সল্টলেকে একটি অ্যাপ-ক্যাব সংস্থার অফিসে কথা বলতে গেলে চালকদের পুলিশ দিয়ে বার করে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। তারই প্রতিবাদে চালকেরা গাড়ি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেন।

পরিবহণকর্তারা জানান, একাধিক অভিযোগের প্রেক্ষিতে পরিবহণ দফতর, অ্যাপ-ক্যাব চালকদের সংগঠন এবং ক্যাব সংস্থার প্রতিনিধিদের নিয়ে একটি কমিটি গঠন করে সরকার। সেখানেই সমস্যা সমাধানের জন্য বলে পরিবহণ দফতর। সেই কমিটিরই এ দিন বৈঠক ছিল কসবার পরিবহণ ভবনে। সেই বৈঠকে একটি অ্যাপ-ক্যাব সংস্থার প্রতিনিধিরা ছিলেন না বলে অভিযোগ। বৈঠকে রফাসূত্র না পেয়ে কসবার কাছে ই এম বাইপাসে নেমে তাণ্ডব শুরু করেন চালকদের সংগঠনের প্রতিনিধিরা। কসবা মোড়ও অবরোধ করেন তাঁরা। কসবা থানার পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে গ্রেফতার করা হয় তাণ্ডবকারীদের।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement