Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ই-পেপার

শেষ বেলায় ধরা পড়ল অকেজো নজর-চোখই

কৌশিক ঘোষ
কলকাতা ২০ নভেম্বর ২০২০ ০৩:১৭
রবীন্দ্র সরোবরে বহিরাগতদের প্রবেশ আটকাতে টালিগঞ্জ স্টেশন সংলগ্ন এলাকায় বসানো হয়েছে টিনের দেওয়াল। বৃহস্পতিবার। নিজস্ব চিত্র

রবীন্দ্র সরোবরে বহিরাগতদের প্রবেশ আটকাতে টালিগঞ্জ স্টেশন সংলগ্ন এলাকায় বসানো হয়েছে টিনের দেওয়াল। বৃহস্পতিবার। নিজস্ব চিত্র

আমপানে রবীন্দ্র সরোবরে গাছ পড়ে দেওয়াল ভেঙে শুধুমাত্র অরক্ষিত জায়গাই তৈরি হয়নি, নষ্ট হয়ে গিয়েছে সমস্ত সিসি ক্যামেরাও। ফলে পরিবেশ আদালত এবং সুপ্রিম কোর্টের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কেউ যদি সরোবরে প্রবেশ করে ছটপুজো করেন অথবা প্রবেশের চেষ্টা করেন, সেই ক্ষেত্রে অভিযুক্তদের চিহ্নিত করতে সমস্যা হবে। সেই কারণে রবীন্দ্র সরোবর এবং সুভাষ সরোবরে সরকারি ভাবে ছটের দিনের পরিস্থিতির প্রমাণ রাখতে এবং অভিযুক্তকে চিহ্নিত করতে সেখানে ভিডিয়োগ্রাফি এবং ছবি তুলে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কেএমডিএ কর্তৃপক্ষ।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, পরিবেশ আদালতের রায়ে রবীন্দ্র সরোবরে এবং হাইকোর্টের রায়ে সুভাষ সরোবরে জলে নেমে ছটপুজোয় আগেই নিষেধাজ্ঞা ছিল। সুপ্রিম কোর্টও রবীন্দ্র সরোবর নিয়ে শেষ পর্যন্ত পরিবেশ আদালতের রায়ই বহাল রেখেছে।

এর পরেই জাতীয় সরোবরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা সাজাতে গিয়ে সেখানকার সিসি ক্যামেরা খারাপ থাকার বিষয়টি নজরে আসে। অন্য দিকে, সুভাষ সরোবরে সিসি ক্যামেরা লাগানোই হয়নি। এর কারণ সম্পর্কে কেএমডিএ-র সিইও অন্তরা আচার্যকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি মন্তব্য করেননি। পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, নিয়ম মেনে দরপত্র ডেকে সিসি ক্যামেরা লাগাতে সময় লাগবে।

Advertisement

কেএমডিএ সূত্রের খবর, বুধ এবং বৃহস্পতিবার পুলিশের সঙ্গে সরোবর কর্তৃপক্ষের বৈঠক হয়েছে। সেখানে সিদ্ধান্ত হয়েছে, সরোবরের সিসি ক্যামেরাগুলি খারাপ হয়ে থাকায় বিকল্প পদ্ধতিতে ছবি তুলে নজরদারি চালানো হবে।

তা ছাড়া রবীন্দ্র সরোবর বৃহস্পতিবার রাত ১২টার পর থেকে শনিবার দুপুর ৩টে পর্যন্ত বন্ধ রাখা হবে। সরোবরের প্রতিটি গেটে কেএমডিএ-র নিরাপত্তারক্ষী ছাড়াও পুলিশ মোতায়েন থাকবে। এমনকি, প্রতিটি গেটের মুখে দু’টি করে ব্যারিকেড থাকবে, যাতে হঠাৎ করে কোনও গেটের সামনে পুণ্যার্থীরা চলে আসতে না পারেন।

আপাতত রবীন্দ্র সরোবরের পাঁচটি গেটকেই পাখির চোখ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন কেএমডিএ কর্তৃপক্ষ। সেগুলি হল লেক গার্ডেন্স স্টেশন সংলগ্ন ৩ নম্বর গেট, গোবিন্দপুর রেললাইনের ধারের গেট, বুদ্ধমন্দির গেট, সাদার্ন অ্যাভিনিউয়ের উপরে দুধের বুথের সামনের গেট এবং কয়েক ফুট দূরে একটি সিনেমা হলের সামনের গেট। গত বছর ওই গেটগুলি ভেঙেই পুণ্যার্থীদের দল সরোবরে প্রবেশ করেছিল।

অন্য দিকে, সুভাষ সরোবরের যে অংশে পাঁচিল দেওয়া হচ্ছে তার উচ্চতা মাত্র দেড় ফুট। সেখান দিয়ে যে কোনও পুণ্যার্থী প্রবেশ করতে পারেন বলেই আধিকারিকদের আশঙ্কা। তা ঠেকাতে গোটা জায়গা টিন দিয়ে ঘেরা হচ্ছে বলেও কর্তৃপক্ষ জানান।

আরও পড়ুন

More from My Kolkata
Advertisement