×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১২ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

কোন গ্রুপের রক্ত কোথায়, জানিয়ে দেবে নয়া অ্যাপ

সৌরভ দত্ত
০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ ০৩:২০

কতটা পথ পেরোলে তবে রক্ত পাওয়া যাবে?

উত্তর দিচ্ছে স্বাস্থ্য দফতরের নতুন অ্যাপ। তবে সঙ্কটের সময়ে রোগীর পরিজনদের হয়রানি রুখতে ওই অ্যাপকে আরও কিছুটা পথ হাঁটতে হবে বলে মনে করছেন রক্তদান আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত সমাজকর্মীরা।

সঙ্কটজনক অবস্থায় রোগী হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন। যত দ্রুত সম্ভব রক্ত চাই। কিন্তু কোন ব্লাড ব্যাঙ্কের দরজায় কড়া নাড়লে প্রয়োজনীয় গ্রুপের রক্ত মিলবে, সেই তথ্য না থাকায় প্রায়ই প্রবল হয়রানির শিকার হন রোগীর পরিজনেরা। এই ধরনের পরিস্থিতি যাতে তৈরি না হয়, তার জন্যই ‘জীবনশক্তি’ নামে নতুন একটি মোবাইল অ্যাপ চালু করেছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর।

Advertisement

অ্যাপ থেকে কী ভাবে মিলবে তথ্য? গুগল ‘প্লে স্টোর’ থেকে ডাউনলোড করা অ্যাপটি খুললেই মোবাইলের পর্দায় ভেসে উঠবে রাজ্যের মানচিত্র। সেখানে কোন জেলার কোথায় কোথায় ব্লাড ব্যাঙ্ক রয়েছে, তা দেখা যাবে। কোনও একটি ব্লাড ব্যাঙ্কের নাম স্পর্শ করলেই মিলবে সেই সম্পর্কিত সংক্ষিপ্ত তথ্য। শেষ কবে ওই তথ্য আপডেট করা হয়েছে, তারও উল্লেখ থাকছে। বিশদে জানার লিঙ্কে গেলে কোন কোন গ্রুপের কত ইউনিট সেই ব্লাড ব্যাঙ্কে রয়েছে, তার সবিস্তার তথ্য আক্ষরিক অর্থেই একেবারে হাতের মুঠোয়।

স্বাস্থ্য ভবনের এই পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েও রক্তদান আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত সমাজকর্মীরা প্রশ্ন তুলেছেন, কেন্দ্রীয় ও বেসরকারি ব্লাড ব্যাঙ্কগুলিকে কেন অ্যাপের মানচিত্রে যুক্ত করা হল না? তাঁদের বক্তব্য, রাজ্য সরকারের ৮২টি ব্লাড ব্যাঙ্কের পাশাপাশি কেন্দ্রের ১৫টি এবং বেসরকারি সংগঠন পরিচালিত ৪৬টি নথিভুক্ত ব্লাড ব্যাঙ্ক রয়েছে। রক্তদান আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত এক সমাজকর্মীর কথায়, ‘‘রাজ্য সরকারের ব্লাড ব্যাঙ্কে প্রয়োজনীয় গ্রুপের রক্ত না মিললে কেন্দ্র ও বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা মুশকিল-আসান হতে পারে। তাই সেই তথ্যও অ্যাপে থাকা উচিত।’’

স্বাস্থ্য ভবনের এক আধিকারিকের কথায়, ‘‘প্রাথমিক ভাবে ৮২টি ব্লাড ব্যাঙ্কের তথ্য অ্যাপে পাওয়া যাচ্ছে। আগামী দিনে কেন্দ্র এবং বেসরকারি সংগঠনের ব্লাড ব্যাঙ্কগুলির তথ্যও অ্যাপে পাওয়া যাবে। প্রযুক্তিগত কিছু সমস্যার কারণে একটু দেরি হচ্ছে।’’ স্বাস্থ্য ভবন সূত্রের খবর, ব্লাড ব্যাঙ্কের তালিকা বৃদ্ধির পাশাপাশি ওই অ্যাপ নিয়ে তাদের আরও কিছু ভাবনা রয়েছে। এক কর্তার কথায়, ‘‘এখন দিনে দু’বার করে তথ্য আপডেট করা হয়। আগামী দিনে প্রতি মুহূর্তেই যাতে তথ্য আপডেট হতে থাকে, সেই ব্যবস্থা করা হবে।’’ স্বাস্থ্য ভবন সূত্রের খবর, এর জন্য রাজ্য সরকারের প্রতিটি ব্লাড ব্যাঙ্কে ‘ডেটা এন্ট্রি অপারেটর’ পদে কর্মী নিয়োগের প্রস্তাব রয়েছে।

Advertisement