Advertisement
২৯ জানুয়ারি ২০২৩

সমবায় করে বন্ধ বাগান খোলার চেষ্টা

সমবায়ের মাধ্যমে খুলতে চলেছে ডুয়ার্সের বন্ধ দু’টি চা বাগান৷ পুজোর মুখে না হলেও, পুজোর পর খুব দ্রুত রেড ব্যাঙ্ক ও সুরেন্দ্র নগর চা বাগানে কাজ শুরু হওয়ার সম্ভাবনা৷ মঙ্গলবার এ কথা জানান জলপাইগুড়ি সেন্ট্রাল কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্কের চেয়ারম্যান সৌরভ চক্রবর্তী।

বন্ধ রেডব্যাঙ্ক চা বাগান। — নিজস্ব চিত্র

বন্ধ রেডব্যাঙ্ক চা বাগান। — নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা
জলপাইগুড়ি শেষ আপডেট: ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬ ০২:৪৭
Share: Save:

সমবায়ের মাধ্যমে খুলতে চলেছে ডুয়ার্সের বন্ধ দু’টি চা বাগান৷ পুজোর মুখে না হলেও, পুজোর পর খুব দ্রুত রেড ব্যাঙ্ক ও সুরেন্দ্র নগর চা বাগানে কাজ শুরু হওয়ার সম্ভাবনা৷ মঙ্গলবার এ কথা জানান জলপাইগুড়ি সেন্ট্রাল কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্কের চেয়ারম্যান সৌরভ চক্রবর্তী।

Advertisement

প্রায় তিন বছর ধরে বন্ধ রয়েছে এই বাগানগুলি৷ বছর দুয়েক আগে রাজ্য সরকার এই বাগানগুলির জমির লিজও বাতিল করে৷ এরপর এ বছরের গোড়ার দিকে সমবায় গঠন করে ধরনীপুর চা বাগান চালুর একটা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল৷ কিন্তু রাজ্য সরকার সেই সময় তাতে অনুমোদন দেয়নি৷ তবে এ মাসের ১৬ তারিখ রেড ব্যাঙ্ক ও সুরেন্দ্রনগর চা বাগানের ক্ষেত্রে সরকার সেই অনুমোদন দিয়েছে৷ সমবায়ের মাধ্যমে চালু হলে এই বাগানগুলির সহযোগী ব্যাঙ্ক হিসাবে থাকবে জলপাইগুড়ি সেন্ট্রাল কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্ক৷ ওই ব্যাঙ্কের চেয়ারম্যান সৌরভ চক্রবর্তী এ দিন সমবায়ের মাধ্যমে বাগান চালুর ব্যাপারে রাজ্য সরকারের এই অনুমোদনের কথা জানান৷ পাশাপাশি এ দিন ব্যাঙ্কের বার্ষিক সাধারণ সভায় ওই বাগানগুলিকে ঋণদান করার বিষয়েও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় ৷ সৌরভবাবুর কথায়, “ওই বাগানগুলি চালু করতে যে পরিমাণ অর্থ ঋণ দরকার তা আমরা দেব৷”

ব্যাঙ্ক সূত্রে জানা গেছে, রেডব্যাঙ্ক চা বাগান পরিচালনার জন্য শ্রমিকরা যে সমবায় খুলেছেন তার নাম – রেড ব্যাঙ্ক টি গার্ডেন ওয়ার্কার সার্ভিস কো অপারেটিভ সোসাইটি৷ অন্যদিকে সুরেন্দ্রনগর চা বাগানের সমবায়টির নাম – সুরেন্দ্রনগর টি গার্ডেন ওয়ার্কার সার্ভিস কো অপারেটিভ সোসাইটি৷ ব্যাঙ্কের এক আধিকারিক জানান, ১৬ সেপ্টেম্বর দু’টি সমবায় সমিতির নথিভূক্তিকরণই হয়ে গিয়েছে৷ এ বার ব্যাঙ্কের তরফ থেকে তাদের সদস্য পদ দেওয়া হবে৷ তারপর শ্রমিকরা সমিতির ডিরেক্টরদের নির্বাচন করবেন ও ডিরেক্টরদের মধ্যে থেকেই একজন চেয়ারম্যান হবেন৷ সমিতিতে রাজ্য সরকারের একজন প্রতিনিধি এবং সহযোগী ব্যাঙ্ক হিসাবে জলপাইগুড়ি সেন্ট্রাল কো অপারেটিভ ব্যাঙ্কের একজন প্রতিনিধি ডিরেক্টর হিসাবে থাকবেন৷

সৌরভবাবু এ দিন বলেন, “আমরা সমবায়ের ভিত্তিতে চা বাগান চালুর কথা বারবার বলছিলাম৷ সমবায়ের ভিত্তিতে চা বাগান চালু হলে একদিকে যেমন বাগানগুলির ভাল হবে, তেমনই সেখানকার শ্রমিক ও তাদের পরিবারের সদস্যদেরও ভাল হবে৷ তাই সরকার সমবায়ের মাধ্যমে দু’টি বাগান চালুর অনুমোদন দেওয়ায় আমরা খুশি৷” সৌরভবাবুর কথায়, ‘‘রেডব্যাঙ্ক ও সুরেন্দ্রনগর সমবায়ের মাধ্যমে চা বাগান পরিচালনার অনুমোদন পাওয়ায়, একইভাবে ধরণীপুর চা বাগান পরিচালনাতেও আর কোনও বাধা থাকবে না ৷

Advertisement

বাগান সূত্রে জানা গিয়েছে, রেড ব্যাঙ্কে প্রায় সাড়ে আটশো, সুরেন্দ্র নগরে প্রায় সাতশো ও ধরনীপুরে প্রায় সাড়ে চারশো শ্রমিক রয়েছেন৷ সমবায়ের মাধ্যমে বাগান চালু হলে তারা সবাই উপকৃত হবেন ৷ সৌরভবাবুর কথায়, ‘‘সমবায়ের মাধ্যমে এ ভাবে কোনও বাগান চালুর ঘটনা রাজ্যে প্রথম ৷ এটা সফল হলে, অন্য বন্ধ বাগানের ক্ষেত্রেও একই ব্যবস্থা চালু করা যাবে৷’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.