Advertisement
২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
Narada sting operation

Narada Scam: সিবিআইয়ের বিরুদ্ধে তৃণমূলের অভিযোগ এফআইআর হিসাবে গৃহীত গড়িয়াহাট থানায়

ভারতীয় ফৌজদারি আইনের ১৬৬, ১৬৬এ, ১৮৮ এবং ৩৪ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ফাইল চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ১৯ মে ২০২১ ১৪:৩৭
Share: Save:

নারদ-কাণ্ডে রাজ্যের দুই মন্ত্রী-সহ শাসকদলের এক বিধায়কের গ্রেফতারির ঘটনায় সিবিআই আধিকারিকদের বিরুদ্ধে কলকাতার পুলিশ কমিশনরের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছিল তৃণমূল মহিলা কংগ্রেস। সংগঠনের সভানেত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য ওই অভিযোগ দায়ের করেন। বুধবার সেই অভিযোগকেই এফআইআর হিসাবে গ্রহণ করা হল কলকাতা পুলিশ। ভারতীয় ফৌজদারি আইনের ১৬৬, ১৬৬এ, ১৮৮ এবং ৩৪ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। সঙ্গে বিপর্যয় মোকাবিলা আইনের ৫১ (বি) ধারাও জোড়া হয়েছে।
গত সোমবার রাজ্যের পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, পরিবহণমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম-সহ কামারহাটির তৃণমূল বিধায়ক মদন মিত্র ও রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যাকে নারদ-কাণ্ডে গ্রেফতার করে। ওই ঘটনার পরেই নিজাম প্যালেসে সিবিআইয়ের দফতরে হাজির হন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার পরেই কলকাতার পুলিশ কমিশনারকে অভিযোগপত্র পাঠান চন্দ্রিমা। তিনি লিখেছিলেন, ‘এমন পরিস্থিতিতে আমার দলের পক্ষ থেকে আপনার কাছে অনুরোধ করছি, অবৈধ ভাবে এই গ্রেফতারির দায়িত্বে থাকা সিবিআই আধিকারিকদের বিরুদ্ধে দ্রুত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করুন। কারণ কোনও রকম গ্রেফতারি পরোয়ানা ছাড়াই প্রধানমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নির্দেশে বলপূর্বক আমাদের মন্ত্রী-বিধায়কদের গ্রেফতার করেছেন ওই আধিকারিকরা’। মন্ত্রী চন্দ্রিমার বাড়ি গড়িয়াহাট থানা এলাকায়। সে কারণে এফআইআর গৃহীত হয়েছে ওই থানাতেই।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE