Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

Visva-Bharati: বাড়ির তালা ভেঙে বিশ্বভারতীর উপাচার্যকে ঘেরাওমুক্ত করল পুলিশ

নিজস্ব সংবাদদাতা
বোলপুর ০৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১৯:৪৭
পূর্বিতার গেটে যে তালা ঝোলানো ছিল, তা শুক্রবার ভেঙে ফেলা হয়।

পূর্বিতার গেটে যে তালা ঝোলানো ছিল, তা শুক্রবার ভেঙে ফেলা হয়।
—নিজস্ব চিত্র।

পড়ুয়াদের আন্দোলনের মাঝেই বিশ্বভারতীর উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তীর বাড়ির মূল গেটের তালা ভাঙল পুলিশ। শুক্রবার কলকাতা হাই কোর্টের নির্দেশের পর তা কার্যকর করতে বিকেলে বোলপুরে উপাচার্যের বাড়ি পূর্বিতার সামনে হাজির হয় বিশাল পুলিশবাহিনী। পূর্বিতার গেটে যে তালা ঝোলানো ছিল তা ভেঙে ফেলা হয়। যদিও পড়ুয়াদের দাবি, তাঁদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। সেই সঙ্গে বিশ্বভারতীর বহিষ্কৃত তিন পড়ুয়ার শাস্তি প্রত্যাহার করতে হবে উপাচার্যকে।

শুক্রবার কলকাতা হাই কোর্ট নির্দেশ দেয়, উপাচার্যের বাসভবনের ৫০ মিটার দূরত্ব বজায় রেখে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করতে পারেন পড়ুয়ারা। তবে ক্যাম্পাস চত্বরে বহিরাগতদের প্রবেশ নিষিদ্ধ বা মাইকের মাধ্যমে আন্দোলনের প্রচারে বিধিনিষেধ আরোপ করে আদালত। আদালতের সেই নির্দেশ কার্যকর করতে শুক্রবার বিকেলে উপাচার্যের বাড়ির সামনে উপস্থিত হয় বিশাল পুলিশবাহিনী। বোলপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অভিষেক রায়, বোলপুরের মহকুমাশাসক অমর নাথ, শান্তিনিকেতন থানার অফিসার ইনচার্জ-সহ পুলিশবাহিনী এসে উপাচার্যকে অবস্থান-বিক্ষোভরত পড়ুয়াদের হাত থেকে মুক্ত করে। যদিও ওই বাহিনী আসার আগে থেকেই আদালতের নির্দেশ মেনে উপাচার্যের বাড়ির ৫০ মিটার দূরত্বে বিক্ষোভ-মঞ্চ সরিয়ে নেওয়ার কাজ শুরু করেছিলেন আন্দোলনকারী পড়ুয়ারা।

Advertisement
উপাচার্যের বাসভবনে আপাতত সশস্ত্র পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

উপাচার্যের বাসভবনে আপাতত সশস্ত্র পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
—নিজস্ব চিত্র।


পুলিশ সূত্রে খবর, উপাচার্যের বাড়ি পূর্বিতার গেটের তালা ভাঙার সময় বিশ্বভারতীর অন্যান্য আধিকারিক এবং নিরাপত্তারক্ষীও উপস্থিত ছিলেন। পূর্বিতা ছাড়াও বিশ্বভারতীর কেন্দ্রীয় কার্যালয় বলাকার গেট পরিদর্শন করেন পুলিশ আধিকারিকেরা। বিশ্বভারতীর নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে কথা বলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার। পাশাপাশি, অবস্থান-বিক্ষোভকারী পড়ুয়ারাই পূর্বিতার গেটে তালা ঝুলিয়েছেন কি না, তা-ও জানতে চান তাঁরা। এর পর পূর্বিতার গেটের তালা ভেঙে তা খুলে দেওয়া হয়। আদালতের নির্দেশে পুলিশ সুপারের উদ্যোগে উপাচার্যের বাসভবনে আপাতত সশস্ত্র পুলিশ-সহ অন্যান্য পুলিশ আধিকারিককেও মোতায়েন করা হয়েছে।

শুক্রবার আদালতের নির্দেশ মেনে উপাচার্যের বাড়ির সামনে অবস্থান-বিক্ষোভের মঞ্চটি সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। এর পর আন্দোলনকারী পড়ুয়ারা কোন পথে আন্দোলন চালাবেন, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। যদিও পড়ুয়াদের একাংশের দাবি, আন্দোলনে চলতে থাকবে। তাঁরা দাবিদাওয়া থেকে সরবেন না। সেই সঙ্গে বহিষ্কার করা ছাত্রছাত্রীকে বিশ্বভারতীতে ফিরিয়ে আনতে হবে উপাচার্যকে। গোটা পরিস্থিতিতে বিশ্বভারতী ক্যাম্পাস চত্বরে টানটান উত্তেজনা রয়েছে।

আরও পড়ুন

Advertisement