Advertisement
২১ জুন ২০২৪
Israel-Hamas Conflict

হামাস নেতার আর্জি

ইজ়রায়েলের যুদ্ধকালীন মন্ত্রিসভার অন্যতম মন্ত্রী বেনি গানজ়ের দল, ন্যাশনাল ইউনিয়ন পার্টির পক্ষ থেকে সম্প্রতি ইজ়রায়েলি পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়ে নির্বাচন এগিয়ে আনার জন্য একটি বিল পেশ করা হয়েছে।

সোমবারও বিস্ফোরণে কেঁপেছে গাজ়া।

সোমবারও বিস্ফোরণে কেঁপেছে গাজ়া। —ফাইল চিত্র।

সংবাদ সংস্থা
তেল আভিভ শেষ আপডেট: ১১ জুন ২০২৪ ০৮:০৮
Share: Save:

হামাসের হাত থেকে চার জন ইজ়রায়েলি পণবন্দিকে ছাড়িয়ে আনার অভিযানে শনিবার ২৭৪ জনেরও বেশি প্যালেস্টাইনিকে কার্যত খুন করেছে ইজ়রায়েলি বাহিনী। আহতের সংখ্যা অগণন। সোমবারও বিস্ফোরণে কেঁপেছে গাজ়া। গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাণ গিয়েছে অন্তত ৪০ জনের। ইজ়রায়েলে হামলা থামায়নি!

ইজ়রায়েলের যুদ্ধকালীন মন্ত্রিসভার অন্যতম মন্ত্রী বেনি গানজ়ের দল, ন্যাশনাল ইউনিয়ন পার্টির পক্ষ থেকে সম্প্রতি ইজ়রায়েলি পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়ে নির্বাচন এগিয়ে আনার জন্য একটি বিল পেশ করা হয়েছে। মন্ত্রিসভা ত্যাগ করেছেন বেনি। তার পরেও অবশ্য, ‘জীবদ্দশায় প্যালেস্টাইন স্বাধীনতা পাবে না’ এই আপ্তবাক্য মেনে হামলা জারি রাখছেন ইজ়রায়েলের প্রধানমন্ত্রী।

এ দিকে, সোমবারই হামাস সশস্ত্র বাহিনীর এক নেতা আমেরিকার কাছে যুদ্ধ শেষ করার আবেদন জানিয়েছেন। সামি আবু জ়ুহরি হামাসের প্রবীণ নেতা এক বিবৃতিতে জানান, ‘আমেরিকার কাছে আবেদন করা হয়েছে যাতে তারা যে ভাবে হোক ইজ়রায়েলকে যুদ্ধ বন্ধের বিষয়ে রাজি করাতে পারে। হামাস যুদ্ধ বন্ধ করার যে কোনও পদক্ষেপকে স্বাগত জানায়।’ গাজ়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দাবি, গত ৭ অক্টোবরের হামলায় হামাস ১২০০ মানুষকে হত্যা করেছিল। বন্দি করেছিল ২৫০ জনকে। পাল্টা জবাবে ইজ়রায়েল ৩৭ হাজারেরও বেশি প্যালেস্টাইনিকে হত্যা করেছে। গাজ়া কার্যত নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে।

ঠিক এই আবহে যুদ্ধবিরতি ও পণবন্দিমুক্তি সংক্রান্ত আলোচনার জন্য আমেরিকার হয়ে অষ্টম বারের মতো মধ্যপ্রাচ্যে পা রেখেছেন বিদেশসচিব অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন। তিনি অবশ্য মনে করেন, হামাসের কারণেই যুদ্ধবিরতির সিদ্ধান্ত বার বার পিছিয়ে যাচ্ছে। সোমবার মিশরের প্রেসিডেন্ট আবদেল ফতে আল-সিসি-র সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। তাঁর আগামী বৈঠক নেতানিয়াহুর সঙ্গে। সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, গানজ়ের সঙ্গেও দেখা করবেন ব্লিঙ্কেন। এই সপ্তাহে জর্ডন ও কাতারেও যাবেন তিনি।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE