পশ্চিমবঙ্গের বনগাঁ লাগোয়া যশোর শহরে শনিবার গভীর রাতে পর পর ৬ জায়গায় মোট ১২টি বোমা বিস্ফোরণ হয়েছে। এর মধ্যে দু’টি করে বোমা ফাটানো হয়েছে স্থানীয় সাংসদ কাজি নাবিল আহমেদ এবং ক্ষমতাসীন দলের এক ছাত্র নেতা, এক যুবনেতা ও এক শ্রমিক নেতার বাড়িতে। একটি পেট্রল পাম্পে ভোর রাতে বোমা হামলার পাশাপাশি ডাকাতিও করা হয়েছে।

বিএনপি আমলে জঙ্গিদের সিরিজ বোমা হামলা নিয়মিত হলেও কয়েক বছরে বাংলাদেশে আর তেমন ঘটনা ঘটেনি। শনিবার রাতের ঘটনায় জঙ্গিরা যুক্ত কি না, পুলিশ তা নিশ্চিত করে বলতে পারেনি। তবে এক দল লোক মুখ ঢেকে বোমা হামলাগুলি করেছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা পুলিশকে জানিয়েছেন। পেট্রল পাম্পের কর্মীরা জানিয়েছেন, ভোর রাতে এক দল দুষ্কৃতী প্রথমে বোমা ফাটিয়ে ভেতরে ঢুকে আসে। কয়েকটি গাড়ি ও পাম্পের কাচ ভাঙে তারা। তার পরে কর্মীদের মাথায় আগ্নেয়াস্ত্র ঠেকিয়ে ক্যাশ বাক্স থেকে ৫০ হাজার ৫১২টাকা নিয়ে পালায়। রবিবার জেলা আওয়ামি লিগ ও ছাত্রলিগ মিছিল বার করে অবিলম্বে দুষ্কৃতীদের গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছে। পুলিশকে ২৪ ঘণ্টা সময়সীমা দিয়েছে তারা।