• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

শেয়ারে মূলধনী লাভ-করে সুবিধা দিতে আইন বদল

share market

শেয়ার বাজারকে চাঙ্গা করতে বেশ কিছু ক্ষেত্রে মূলধনী লাভ-করে সুবিধা দেওয়ার কথা ঘোষণা করল কেন্দ্র। ওই সব কেনাবেচায় সিকিউরিটিজ ট্রানজাকশন ট্যাক্স (এসটিটি) বা শেয়ার লেনদেন বাবদ কর না-দেওয়া থাকলেও লগ্নিকারীদের দীর্ঘ মেয়াদি মূলধনী লাভ-কর লাগবে না।

মঙ্গলবার কেন্দ্র জানিয়েছে, লগ্নিকারী কোনও সংস্থার নতুন শেয়ার (আইপিও) কিনলে, তাঁর হাতে বোনাস শেয়ার এলে বা রাইট্স ইস্যুতে কেউ বিনিয়োগ করে থাকলে তাঁকে দীর্ঘ মেয়াদি মূলধনী লাভ-কর দিতে হবে না। ওই বিনিয়োগের সময়ে এসটিটি না-দেওয়া হলেও এই সুবিধা মিলবে। এ জন্য আয়কর আইনের ১০ (৩৮) ধারায় সংশোধনী আনা হয়েছে।

ঘোষণায় আরও যে-সব ক্ষেত্রে এসটিটি না-দেওয়া সত্ত্বেও মূলধনী লাভ-করে সুবিধা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে, তার মধ্যে রয়েছে: বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে অনাবসী ভারতীয়দের লগ্নি বা ভেঞ্চার ক্যাপিটাল ফান্ডের শেয়ারে বিনিয়োগ, এমপ্লয়িজ স্টক অপশন (ইসপ) প্রকল্পে কর্মীর হাতে আসা শেয়ার বা একটি সংস্থার সঙ্গে অন্যটি মিশে যাওয়ার সময়ে ইকুইটি বিনিময় প্রকল্পে পাওয়া শেয়ার। 

পাশাপাশি ওই ঘোষণায় বলা হয়েছে, যে-সব লেনদেন ২০০৪ সালের ১ অক্টোবর বা তার পরে হয়েছে, সেই সব ক্ষেত্রে এসটিটি দেওয়া থাকলে তবেই মূলধনী লাভ-করে সুবিধা মিলবে। উল্লেখ্য, ওই দিনের আগে এসটিটি-র অস্তিত্বই ছিল না। সংশয় যা-নিয়ে ছিল তা হল, এসটিটি চালুর আগেও যাঁরা শেয়ার কিনে রেখেছিলেন তাঁরা এই সুবিধা পাবেন কি না। এ বার স্পষ্ট হল, তাঁরা সুবিধার আওতায় আসবেন।

প্রসঙ্গত, এ বারের বাজেটে অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি মূলধনী লাভ-করে সুবিধার যাতে অপব্যবহার না-হয়, তা নিশ্চিত করতে কিছু বিধিনিষেধের কথা বলেছিলেন। তবে যাঁরা আইন মেনেই শেয়ার লেনদেন করেন, তাঁরাও মূলধনী লাভ-করে সুবিধা পাবেন কি না, এর জেরে তা নিয়েই বিভ্রান্তি তৈরি হয়। বিশেষ করে এসটিটি চালু হওয়ার আগে যাঁরা শেয়ার কিনেছিলেন, তাঁরা সুবিধা পাবেন না বলেই ধারণা সৃষ্টি হয়েছিল।

বস্তুত, বেশ কিছু অসাধু শেয়ার লেনদেনকারী বেআইনি পথে দীর্ঘ মেয়াদি মূলধনী লাভ-করে সুবিধা নিচ্ছেন বলে আয়কর দফতরের নজরে আসে। ভুয়ো সংস্থা খুলেও শেয়ার হস্তান্তর করে ওই সুবিধা নিচ্ছিলেন কিছু লগ্নিকারী। এটা বন্ধ করতেই কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী বাজেটে মূলধনী লাভ-কর ছাড়ে কিছু বিধিনিষেধ আনার কথা ঘোষণা করেন। কিন্তু তাতে অনেক ক্ষেত্রে প্রকৃত সৎ লগ্নিকারীরাও বঞ্চিত হচ্ছিলেন বলে অভিযোগ। কেন্দ্রের এ দিনের ঘোষণা ওই সমস্যা মেটাতে সাহায্য করবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। প্রবীণ বাজার বিশেষজ্ঞ অজিত দে এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘‘এ দিনের ঘোষণার পরে মূলধনী লাভ-করে সুবিধা পাওয়া নিয়ে যে-সংশয় সৃষ্টি হয়েছিল, তা দূর হবে বলেই আমার বিশ্বাস।’’

বর্তমান আইনে, এসটিটি দেওয়া থাকলে শেয়ার কিনে এক বছর ধরে রেখে বিক্রি করলে মুনাফায় মূলধনী লাভ-কর লাগে না। তার আগে বিক্রি করলে ১৫% হারে এই কর দিতে হয়।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন