• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ভুগবে শিল্প, মানল কেন্দ্র

Piyush Goyal
পীযূষ গয়াল।

শিল্প সংস্থা ও বণিকসভাগুলি বলেছিল আগেই। এ বার খোদ সরকার স্বীকার করে নিল আশঙ্কার কথা। জানাল, চিনে করোনাভাইরাসের প্রকোপের বিরূপ প্রভাব পড়তে পারে ভারতের শিল্প ও বাণিজ্যের উপরেও। বিশেষ করে কাঁচামাল আমদানির ক্ষেত্রে। শিল্প ক্ষেত্রে করোনার প্রভাব খতিয়ে দেখতে বৃহস্পতিবার সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন পক্ষের সঙ্গে বৈঠক করবেন শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী পীযূষ গয়াল। আলোচনা হবে রফতানি বৃদ্ধির সুযোগ নিয়েও। 

ঘটনাচক্রে গত দু’দিনে অর্থনীতির জন্য ত্রাণ প্রকল্প ঘোষণা করেছে জাপান, ব্রিটেন ও ইটালি। ছোট ব্যবসার নগদের জোগান নিশ্চিত করতে ঋণ ঘোষণা করেছে জাপান। ব্রিটেনের শীর্ষ ব্যাঙ্কও সুদ কমিয়েছে ৫০ বেসিস পয়েন্ট। উল্লেখ্য, করোনার প্রেক্ষিতেই সম্প্রতি দেশের অর্থনীতি ভিত শক্তিশালী বলে আশ্বস্ত করেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। 

বুধবার লোকসভায় প্রশ্নোত্তর পর্বে এক লিখিত উত্তরে গয়াল জানান, করোনার প্রভাবে চিনের বিভিন্ন প্রদেশে বহু সংস্থা বন্ধ। কিন্তু ভারতের ওষুধ, বৈদ্যুতিন ও গাড়ি শিল্প তাদের তৈরি কাঁচামাল ও যন্ত্রাংশের উপরে নির্ভরশীল। ফলে এই সমস্ত ক্ষেত্র সমস্যায় পড়তে পারে। মন্ত্রী জানান, এই অবস্থায় বণিকসভা ও রফতানি উন্নয়ন পরিষদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছে কেন্দ্র। অনুমান করার চেষ্টা করছে করোনার প্রভাব। পাশাপাশি, ভবিষ্যতে কাঁচামালের জন্য যাতে চিনের উপরে অতিরিক্ত নির্ভর করতে না-হয়, তার জন্য বিকল্প বাজারের খোঁজ চলছে। বিভিন্ন দেশে ভারতীয় রাষ্ট্রদূতদের এই সম্ভাবনা খতিয়ে দেখতে বলা হয়েছে। 

এ দিনই ব্রিটিশ ব্রোকারেজ সংস্থা বার্কলেজ় জানিয়েছে, করোনার প্রভাবে ভারতের আর্থিক বৃদ্ধির হার ২ শতাংশ বিন্দু কমতে পারে। 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন