গাড়ি-বাড়ি ও ছোট-মাঝারি শিল্পের ঋণ এই মাস থেকেই যুক্ত হয়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের রেপো রেটের (স্বল্প মেয়াদে বাণিজ্যিক ব্যাঙ্কগুলিকে যে সুদে ধার দেয় আরবিআই) সঙ্গে। স্টেট ব্যাঙ্কের দাবি, অগস্টের রেপো অনুযায়ী, ওই সব ধারে সুদ ইতিমধ্যেই কমেছে। গত শুক্রবার রেপোর ফের ২৫ বেসিস পয়েন্ট কমার জেরও পড়বে। তবে বুধবার রেপোর সঙ্গে যুক্ত নয় এমন সমস্ত ঋণে সুদ কমানোর কথা ঘোষণা করল তারা। সুদ কমাল নির্দিষ্ট কিছু আমানতে।

এসবিআই জানিয়েছে, আজ বৃহস্পতিবার থেকে কমছে ঋণ দেওয়ার জন্য তহবিল সংগ্রহের খরচের ভিত্তিতে (এমসিএলআর) হিসেব করা সুদ। ফলে রেপো রেটের সঙ্গে যুক্ত ঋণগুলি বাদে বাকি সমস্ত ঋণে সব মেয়াদে সুদ কমেছে ১০ বেসিস পয়েন্ট। যার মধ্যে অন্যতম শিল্পকে দেওয়া ধার।

আজ থেকেই ২ কোটি টাকার কম আমানতে ১ থেকে ২ বছর মেয়াদে ১০ বেসিস পয়েন্ট সুদ কমছে। সাধারণ গ্রাহকদের জন্য তা হচ্ছে ৬.৪০%, প্রবীণ নাগরিকদের ক্ষেত্রে ৬.৯০%। আমানত ২ কোটি বা তার বেশি হলে, ওই ১ থেকে ২ বছর মেয়াদেই সুদ কমেছে ৩০ বেসিস পয়েন্ট। সাধারণ ও প্রবীণদের নতুন হার যথাক্রমে ৬% ও ৬.৫০%। বাকি সব মেয়াদি জমায় অবশ্য সুদ অপরিবর্তিত। ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষের দাবি, নতুন মেয়াদি আমানতকারীরাই শুধু এই হারে সুদ পাবেন। পুরনোরা নন। ঋণেও পরিবর্তিত সুদ নতুনদের জন্য।

ঋণে সুদ কমার খবরে শিল্প খুশি। তবে আমানত নিয়ে চিন্তা বেড়েছে প্রবীণদের। বিশেষজ্ঞদের অবশ্য দাবি, যেহেতু দীর্ঘমেয়াদের জমায় সুদ একই রয়েছে, তাই অন্তত এই দফার সিদ্ধান্তে বয়স্ক সুদ নির্ভর মানুষেরা তেমন ক্ষতিগ্রস্ত হবেন না। কারণ, যাঁদের ক্ষেত্রে ব্যাঙ্কের সুদই একমাত্র আয়ের পথ, তাঁরা সাধারণ ভাবে দীর্ঘ মেয়াদেই টাকা জমা রাখেন।

এ দিকে, গত শুক্রবার আরবিআই রেপো কমানোয় ১ নভেম্বর থেকে স্টেট ব্যাঙ্কের সেভিংস অ্যাকাউন্টে ১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত জমায় সুদ কমে হচ্ছে ৩.২৫%। একই কারণে গাড়ি, বাড়ি, শিক্ষা, ব্যক্তিগত-সহ বিভিন্ন খুচরো ঋণে সুদ কমাচ্ছে ব্যাঙ্ক অব বরোদাও।