নিজেকে মার্কিন বাহিনীর প্রশিক্ষক হিসাবে পরিচয় দিয়েছিলেন। সল্টলেকে সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্স (সিআরপিএফ)-এর অফিসে গিয়ে তাদের বাহিনীকে প্রশিক্ষণ দেওয়ার প্রস্তাবও দেন। সেখানে গিয়ে ওই ব্যক্তি আবার কয়েকটি কার্ড এবং একটি মেডেল দেখান। সঙ্গে একাধিক সার্টিফিকেট। যাতে তাঁর পরিচয়, সার্টিফায়েড মাস্টার অ্যান্টিটেররিসম স্পেশ্যালিস্ট।

কিন্তু, সব দেখে সিআরপিএফ কর্মীদের সন্দেহ হয়। তাঁরা বিধাননগর দক্ষিণ থানায় যোগাযোগ করেন। বুধবার রাতেই ওই ব্যক্তি এবং তাঁর এক সঙ্গীকে তুলে দেওয়া হয় পুলিশের হাতে। প্রতারণার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে দু’জনকেই। পুলিশ জানিয়েছে নিজেকে মার্কিন বাহিনীর প্রশিক্ষক বলে পরিচয় দেওয়া ব্যক্তির নাম কেশব মজুমদার। তাঁর সঙ্গীর নাম সনাতন দাস।

বাগুইআটির অশ্বিনীনগরের বাসিন্দা কেশব। বাবা ছিলেন সেনা বাহিনীর উচ্চপদস্থ কর্তা। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, কেশবের দিদি কলেজে পড়ান। কিন্তু খুব অল্প বয়য় থেকেই কেশবের আচরণ একটু অসংলগ্ন। তিনি সারা দিন সেনার ক্যামোফ্লেজ পোশাক পরে ঘুরে বেড়ান।

উদ্ধার হওয়া ভুয়ো পরিচয়পত্র।

তাঁর এক প্রতিবেশী বলেন, ‘‘ছেলেটির বাবার মতো সেনা বাহিনীতে যোগ দেওয়ার ইচ্ছে ছিল। কিন্তু কৃতকার্য হতে পারেনি। তার পর থেকেই কেশব নিজেকে সেনা কর্তা ভাবতেই ভালবাসে।’’

আরও পড়ুন: পার্ক স্ট্রিটে মহিলাকে পুলিশের চড়!

আরও পড়ুন: রথযাত্রার অনুমতি দিয়ে দিল হাইকোর্ট, তবে বিজেপিকে বেশ কিছু শর্ত

পুলিশ যদিও সব সম্ভাবনা খতিয়ে দেখছে। এক তদন্তকারী আধিকারিক বলেন, “ওই ব্যক্তির মানসিক ভারসাম্যের সমস্যা আছে কি না, তা দেখা হচ্ছে। পাশাপাশি তাঁর অন্য কোনও উদ্দেশ্য ছিল কি না এবং জাল ওই সমস্ত নথি কোথায় তৈরি করা হয়েছে দেখা হচ্ছে তা-ও।”