কার্ড স্কিমিং বা নকল করে টাকা হাতানোর এক আন্তঃরাজ্য চক্রের হদিস পেল বিধাননগরের সাইবার পুলিশ। সম্প্রতি তারা চেন্নাইয়ের একটি হোটেল থেকে ২৫ লক্ষ টাকা এবং প্রচুর কার্ড বাজেয়াপ্ত করে। গ্রেফতার করা হয় ঝাড়খণ্ডের জামতারা জেলার দুই বাসিন্দা বিজয় কুমার মণ্ডল এবং সুগেন্দর মণ্ডলকে। 

তদন্তকারীরা জানান, এই চক্রের সূত্র হিসেবে গত জানুয়ারিতে প্লাস্টিক কার্ড-সহ সঞ্জয় মণ্ডল নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছিল বিধাননগর দক্ষিণ থানার পুলিশ। তাঁরা জানান, ১ জানুয়ারি সল্টলেকে একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের এটিএম থেকে সঞ্জয়কে একটি সাদা রঙের প্লাস্টিক কার্ড-সহ হাতেনাতে গ্রেফতার করা হয়। পুলিশ জানাচ্ছে, ওই সাদা কার্ডই আসলে গ্রাহকের অ্যাকাউন্টের তথ্য এটিএম থেকে নকল করে বের করে নেওয়া যন্ত্র।

পুলিশ জানায়, অনলাইনে টাকা হাতালে তা কোনও একটি অ্যাকাউন্টে গিয়ে জমা পড়ে। অনেক ক্ষেত্রে সেই অ্যাকাউন্ট দেখে দুষ্কৃতীদের ধরে ফেলে পুলিশ। ফলে জামতারার ওই জালিয়াতেরা নগদে টাকা তুলে নিত। দেশের বিভিন্ন রাজ্যে ঘুরে ঘুরে তারা ওই কাজ করত। সাইবার বিশেষজ্ঞ বিভাস চট্টোপাধ্যায় মনে করেন, জালিয়াতির ধরন বদলাচ্ছে। জালিয়াতেরা বিভিন্ন জায়গা থেকে স্বল্প অঙ্কের টাকা নগদে তুলছে। তা উদ্ধার করতে এক রাজ্যের পুলিশের পক্ষে অন্য রাজ্যে ছোটা সম্ভব নয়। ফলে সব রাজ্যের পুলিশকে একত্রিত হয়ে কাজ করতে হবে।

বিধাননগরের সাইবার বিভাগের পুলিশ চেন্নাইয়ের ওই হোটেল থেকে নগদ টাকা, এটিএম কার্ড ছাড়াও কার্ড নকল করার স্কিমিং মেশিনও আটক করেছে। ধৃতদের মঙ্গলবার বিধাননগর আদালতে তোলা হলে তাদের পাঁচ দিনের পুলিশি হেফাজত হয়। সাইবার বিভাগের পুলিশ সঞ্জয়কে জেরা করার পরেই ফেব্রুয়ারিতে চেন্নাইয়ের ওই হোটেলে হানা দেয়। এটিএম কার্ডের মতো কিছু সাদা প্লাস্টিক কার্ড অভিযুক্তদের থেকে পাওয়া গিয়েছে।