ঘূর্ণিঝড় ফণী নিয়ে সব ধরনের সতকর্তা নিয়েছিল কলকাতা পুরসভা। তবে ফণীর তেমন দাপট সইতে হয়নি কলকাতাকে। কিন্তু আসন্ন ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের মোকাবিলায় কোনও ঢিলেমি রাখতে চাইছে না পুর প্রশাসন। আগাম প্রস্তুতি নিতে আজ, শুক্রবার পুরভবনে জরুরি বৈঠক ডেকেছেন মেয়র ফিরহাদ হাকিম। পুরসভার প্রতিটি বরোর এগজিকিউটিভ অফিসার-সহ সব দফতরের পদস্থ কর্তাদের হাজির থাকতে বলা হয়েছে ওই বৈঠকে।

আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ধেয়ে আসছে বঙ্গোপসাগরের উপর থেকে সৃষ্ট হওয়া ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। ইতিমধ্যেই রাজ্য প্রশাসনের তরফ থেকে সমুদ্র উপকূলবর্তী এলাকার বাসিন্দাদের সতর্ক করা হয়েছে। বুলবুলের আঁচ পড়তে পারে কলকাতাতেও। আলিপুর আবহাওয়া দফতর থেকে বলা হয়েছে, বুলবুলের প্রভাবে শনিবার এবং রবিবার অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে। বইবে ঝোড়ো হাওয়াও। এমনিতেই কলকাতায় ঘণ্টাখানেক ভারী বৃষ্টি হলে শহরের বিভিন্ন জায়গায় জল জমে যায়। লাগাতার কয়েক ঘণ্টা অতি ভারী বৃষ্টি হলে শহরে জল জমার চিত্রটা কী হতে পারে, তা নিয়ে চিন্তায় রয়েছেন পুরকর্তারা। এখন শহর জুড়ে ডেঙ্গির এবং জ্বরের প্রকোপ বেড়েছে। তাই জমা জলের স্থায়িত্ব বাড়লে মশাবাহিত রোগ নিয়েও নতুন করে সমস্যায় পড়তে হবে বলে মনে করছেন তাঁরা। ঘূর্ণিঝড়ের আগাম সতর্কতা নিয়ে বৈঠকে এই বিষয়টিও নজরে রাখতে বলা হবে প্রতিটি বরো কর্তৃপক্ষকে।

পুর কমিশনার খলিল আহমেদ এ দিন জানান, বুলবুলের দাপট সামলাতে ইতিমধ্যেই পুরসভার কয়েকটি দফতরের কর্মীদের ছুটি বাতিল করা হচ্ছে। পুরভবনে সারাক্ষণ কন্ট্রোল রুম খোলা থাকবে। সেখানে নিকাশি, স্বাস্থ্য, ইঞ্জিনিয়ারিং, বিল্ডিং দফতরের আধিকারিকেরা হাজির থাকবেন। কোন কোন এলাকায় কারা দায়িত্বে থাকবেন, সে সব শুক্রবারের বৈঠকে চূড়ান্ত করা হবে বলে জানান তিনি।