শহরের পানশালায় ভবিষ্যতেও নাচের ক্ষেত্রেও কোনও বাধা থাকবে না। তবে পানশালাগুলিকে মানতে হবে নির্দিষ্ট বিধি। কলকাতা পুলিশ সূত্রে খবর, শহরের পানশালাগুলির জন্য নতুন বিধি তৈরি করা হচ্ছে।

২০১৫ সালে হাইকোর্টের বিচারপতি দীপঙ্কর দত্ত তাঁর রায়ে যে নির্দেশ দিয়েছিলেন, সেটাই কলকাতা পুলিশের নয়া বিধিতে প্রতিফলিত হবে বলে ওই সূত্রের খবর।

এখনও পর্যন্ত কলকাতা পুলিশ এলাকাতে যে কোনও পানশালাতে গান নিষিদ্ধ না হলেও নাচ একেবারেই বারণ। কিন্তু ‘ডান্স বার’ নিয়ে বিভিন্ন মামলায় সুপ্রিম কোর্ট এবং কলকাতা হাইকোর্ট সেই নিষেধাজ্ঞাকে আমল দেয়নি। ফলে শহরের এই সব সিঙ্গিং বারেই কম বেশি নাচ হয়ে থাকে।

কলকাতা পুলিশ সূত্রে খূবর, সেই কারণেই একটি আচরণ বিধি তৈরি করার কথা ভাবা হচ্ছে, যাতে পানশালাগুলিকে নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রাখা যায়। এক শীর্ষ পুলিশ কর্তা বলেন,‘‘যেখানে খোদ কলকাতা হাইকোর্ট পানশালায় নাচের ক্ষেত্রে কোনও বাধা দেয়নি, সেখানে পুলিশের পক্ষে নাচ আটকানো কঠিন। কিন্তু নতুন এই বিধি মানলে পানশালায় অশান্তি এড়ানো যাবে। আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখা যাবে।”

আরও পড়ুন: ব্যাঙ্কের নামে এসএমএস, ক্লিক করলেই অ্যাকাউন্ট থেকে গায়েব হতে পারে টাকা!

বিচারপতি দীপঙ্কর দত্ত ২০১৫ সালের ওই রায়ে জানিয়েছিলেন, পেশাদার শিল্পীরা নাচ বা গান পরিবেশন করতেই পারেন। তবে তা সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত। তার আগে বা পরে নয়। গান বা নাচ পরিবেশন করতে হবে নির্দিষ্ট মঞ্চ থেকে যার চারপাশ ঘেরা থাকবে তিন ফুট উঁচু রেলিংয়ে। ওই মঞ্চ থেকে দর্শকদের বসার জায়গার দূরত্ব হতে হবে কমপক্ষে ৪ ফুট।

অন্য দিকে, যে মহিলারা নাচ বা গান পরিবেশন করবেন তাঁরা খোলামেলা বা দেহের সঙ্গে এঁটে বসা কোনও পোশাক পরতে পারবেন না। কোনও ধরনের যৌন উদ্দীপক অঙ্গভঙ্গি করা যাবে না। কর্তৃপক্ষকে পানশালায় সিসি ক্যামেরা রাখতে হবে এবং নির্দিষ্ট সময় অন্তর অন্তর সেই ফুটেজ পুলিশ বা আবগারি দফতরে জমা দিতে হবে।

আরও পড়ুন: মোবাইল চোর ধরতে যাত্রী সেজে বাসে পুলিশ, জালে বড়সড় চক্র

ওই নির্দেশে পরিষ্কার বলা হয়েছে গান বা নাচ পরিবেশনকারীরা কখনওই দর্শকদের সংস্পর্শে আসতে পারবেন না। কোনও ভাবে টাকা ওড়ানো যাবে না। এ রকম প্রায় ২৫ টি নির্দেশ রয়েছে বিচারপতি দীপঙ্কর দত্তের রায়ে।

কলকাতা পুলিশ সূত্রে খবর, ওই নির্দেশ মাথায় রেখেই তৈরি করা হবে নতুন বিধি।