• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

লালবাজারে ফোন করে ‘বোমার’ খবর, গ্রেফতার মহেশতলার যুবক

Youth
ধৃত মহেশতলার বাসিন্দা অর্কপ্রভ গঙ্গোপাধ্যায়। —নিজস্ব চিত্র।

শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় বোমা রাখা হয়েছে বলে খাস লালবাজারে ফোন। আর সেই ফোন করেই পুলিশের জালে শহরেরই এক আলোকচিত্রী। পুলিশকে ফোন করে ভুয়ো বোমাতঙ্ক ছড়ানোর জন্য মহেশতলার বাসিন্দা অর্কপ্রভ গঙ্গোপাধ্যায় নামে এক যুবককে গ্রেফতার করল কলকাতা পুলিশের স্পেশ্যাল টাস্ক ফোর্স। ওই যুবককে বৃহস্পতিবার ব্যাঙ্কশাল আদালতে হাজির করানো হয়।

কলকাতা পুলিশ জানিয়েছে, মঙ্গলবার ১০০ ডায়ালে ফোন করে অজ্ঞাত পরিচয় এক ব্যক্তি লালবাজারের কন্ট্রোল রুমের আধিকারিকদের বোমার কথা বলেন। বার বার ওই ব্যক্তিকে কোথায় বোমা রাখা আছে জানতে চাইলে তিনি সে বিষয়ে কোনও তথ্য দিতে অস্বীকার করেন বলে দাবি পুলিশের। এর পর যে নম্বর থেকে তিনি ফোন করেছিলেন, সেটি সুইচড অফ হয়ে যায়। সঙ্গে সঙ্গে কলকাতা পুলিশের শীর্ষ আধিকারিকদের গোটা ঘটনার কথা জানানো হয়। স্পেশ্যাল টাস্ক ফোর্স দ্রুত খোঁজ খবর করা শুরু করে এবং নিশ্চিত হয় যে গোটাটাই ভুয়ো। এর পরেই ওই অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে তদন্ত  শুরু করে পুলিশ।

১০০ ডায়ালে করা ফোনের সূত্র ধরে ওই যুবককে মহেশতলা ইডেন সিটি আবাসনের বাসিন্দা অর্কপ্রভ গঙ্গোপাধ্যায় বলে চিহ্নিত করা হয়। বুধবার রাতেই তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। এসটিএফের ডেপুটি কমিশনার অপরাজিতা রাইয়ের দাবি, জেরায় ধৃত এখনও স্পষ্ট করে বলেনি কেন সে ভুয়ো বোমাতঙ্ক ছড়িয়েছিল। তবে প্রাথমিক ভাবে পুলিশের ধারণা, মত্ত অবস্থায় মজা করতে ফোন করেছিল ওই যুবক।

আরও পড়ুন: করোনা চিকিৎসা চলাকালীন কার্ডিয়াক অ্যারেস্টে প্রয়াত শ্যামল চক্রবর্তী​

আরও পড়ুন: আক্রান্তকেও ‘নেগেটিভ’ রিপোর্ট দিয়েছিল বাঙুর

কলকাতা পুলিশের এক আধিকারিক বলেন, ‘‘প্রায়ই এ ধরনের ভুয়ো ফোন আসে আমাদের কাছে। অনেকে মজা করে এমনটা করেন। কিন্তু তাঁদের জানা উচিত, এ ধরনের ভুয়ো ফোন করে আতঙ্ক তৈরি করা বা পুলিশকে নাজেহাল করা আইনত অপরাধ।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন