ভিজি সিদ্ধার্থের মৃত্যুর ঘটনাকে সামনে রেখে ফের কেন্দ্রকে নিশানা করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মোদী সরকারের আর্থিক নীতি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন তিনি। ফেসবুকে মুখ্যমন্ত্রী অভিযোগ করেছেন, ‘সিদ্ধার্থ শান্তিতে ব্যবসা করতে পারছিলেন না।’ দেশের বহু শিল্পপতি চাপে রয়েছেন বলেও ওই পোস্টে দাবি করেছেন তিনি।

কফি ব্যারন সিদ্ধার্থের মৃত্যুতে, আয়কর দফতরের কয়েকজন অফিসারের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিল কর্নাটক কংগ্রেস। আরও একধাপ এগিয়ে এ বার কেন্দ্র সরকারকেই নিশানা করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফেসবুক পোস্টে কার্যত বোমা ফাটিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি লিখেছেন, ‘ভিজি সিদ্ধার্থের পরিণতি দেখে স্তম্ভিত। এটা খুবই দুঃখজনক ও দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা। মনে হচ্ছে, বিভিন্ন সংস্থার চাপ ও হেনস্থার মুখে পড়েছিলেন তিনি। সে জন্য তিনি শান্তিতে ব্যবসাও করতে পারছিলেন না। বিভিন্ন সূত্র থেকে আমি জানতে পেরেছি যে এই দেশের বহু শিল্পপতিই চাপে রয়েছেন। অনেকে দেশ ছেড়ে দিয়েছেন। আবার অনেকে দেশ ছাড়ার কথাও ভাবছেন। প্রতিটি বিরোধী দলই ঘোড়া কেনাবেচা, হেনস্থা ও রাজনৈতিক প্রতিহিংসা মেটানোর আতঙ্কে তটস্থ।’

ভিজি সিদ্ধার্থের পরিণতিকে সামনে রেখে দেশের আর্থিক পরিস্থিতি নিয়েও কেন্দ্রকে বিঁধেছেন মুখ্যমন্ত্রী। ফেসবুকে লিখেছেন, ‘এক দিকে দেশের আর্থিক বৃদ্ধি মুখ থুবড়ে পড়েছে। অন্যদিকে, কেন্দ্র সরকারের নীতি বেসরকারিকরণ। শিল্প, কৃষির ও কর্মসংস্থানের উপর দাঁড়িয়ে রয়েছে দেশের ভবিষ্যৎ। কিন্তু, যদি শিল্পই আস্থা হারায় তাহলে আর্থিক বৃদ্ধি বা কর্মসংস্থান কোনওটাই হবে না। এটা চললে আরও মানুষ কাজ হারাবেন। মানুষ যেন সরকারের কাজে আস্থা ফিরে পায়। রাজনৈতিক প্রতিহিংসা ও এজেন্সির অপব্যবহার যেন আমাদের দেশের ভবিষ্যৎ না নষ্ট করে দেয়।’

আরও পড়ুন: সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়ার স্বপ্ন ফেলে ১৪০ বছরের প্রাচীন পারিবারিক ব্যবসার হাল ধরেই কফি-ব্যারন

অবশ্য এই প্রথম নয়। এর আগেও, মোদি সরকারের বিরুদ্ধে ঠিক এই অভিযোগগুলিই বার বার করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ দিন সিদ্ধার্থের পরিবারকেও শোকজ্ঞাপন করেছেন তিনি।

আরও পড়ুন: ভিজি সিদ্ধার্থকে শেষশ্রদ্ধা, আজ দেশ জুড়ে বন্ধ সিসিডি, কফি এস্টেট​