বাসন্তীদেবী কলেজের ছাদে চালু হল সৌর বিদ্যুৎ প্রকল্প। এই বিদ্যুৎকেন্দ্রটি থেকে দিনে ১০ কিলোওয়াট করে বিদ্যুৎ উৎপাদন হবে। যা কলেজেরই আলো-পাখা জ্বালাতে কাজে লাগবে। শুক্রবার এই প্রকল্পের উদ্বোধন করেন বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়।

সৌর বিদ্যুৎ প্রকল্প বিশেষজ্ঞ শান্তিপদ গণচৌধুরী জানিয়েছেন, কলকাতার এক সৌর বিদ্যুৎ বিষয়ক গবেষণা কেন্দ্রের সহযোগিতায় বাসন্তীদেবী কলেজ প্রকল্পটি রূপায়িত করেছে। এর ফলে বছরে দেড় লক্ষ টাকা করে বিদ্যুৎ বিল বাঁচবে। সঙ্গে সৌর বিদ্যুৎ ব্যবহারের ফলে পরিবেশেও দূষণ কমবে।

গত কিছু বছরে কলকাতা-সহ রাজ্যের বহু স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাদে সৌর বিদ্যুতের প্যানেল বসানো হচ্ছে। সরকারি বিভিন্ন অফিসের ছাদেও একই ধরনের প্রকল্প হচ্ছে। এর ফলে স্কুল-কলেজগুলি দিনের বেলায় নিজেদের প্রয়োজনে সৌর বিদ্যুৎ ব্যবহার করতে পারছে। ওই বিদ্যুৎ পরিষেবা বাবদ বছরে বেশ কিছুটা টাকা বেঁচে যাচ্ছে। শান্তিপদবাবু জানিয়েছেন, সৌর প্যানেলগুলি এমন ভাবে বসানো হয়েছে, যাতে শীততাপ নিয়ন্ত্রিত ঘরগুলিতে সূর্যের তাপ বেশি না লাগে। ফলে এসি যন্ত্রের উপর চাপও কম পড়বে। তাতেও বিদ্যুতের ব্যবহার কমবে।