মৃত এক ব্যক্তির বাড়িতে নোটিস ধরাতে গিয়ে আক্রান্ত হলেন দুই সিভিক ভলান্টিয়ার। এমনকি পুলিশের একটি গাড়িও ভাঙচুর করা হয় বলে অভিযোগ। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার রাতে নরেন্দ্রপুর থানা এলাকার সোনারপুর-রাজপুর পুরসভার নবগ্রামে। আহত দু’জন নরেন্দ্রপুর থানার সিভিক ভলান্টিয়ার। তাঁদের নাম মন্টু গাজি ও নাসির আলি গাজি। ঘটনায় জড়িতদের খোঁজ চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের খবর,ওই এলাকার বাসিন্দা কাজল দে নামে এক বেআইনি মদ বিক্রেতাকে গত শনিবার গ্রেফতার করে নরেন্দ্রপুর থানার পুলিশ। রবিবার তাঁকে বারুইপুর আদালতে তোলা হলে বিচারক জেল হেফাজতের নির্দেশ দেন। সোমবার বারুইপুর সংশোধনাগারে অসুস্থ হয়ে পড়েন কাজল। সংশোধনাগারেই তাঁর চিকিৎসা শুরু হয়। চিকিৎসকেরা জানান, কাজল মাদকাসক্ত ছিলেন, তাই অসুস্থ হয়ে পড়েন। এ দিকে, তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে দেখে বুধবার কাজলকে বারুইপুর মহকুমা হাসপাতাল ভর্তি করা হয়। ওই রাতেই হাসপাতালে মারা যান তিনি।

তাঁর মৃত্যুর খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার পরিজনেরা গড়িয়ার কাছে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান। এমনকি কাজলের দেহ নিতে অস্বীকার করেন তাঁরা। এর পরে ওই এলাকায় রাতে পুলিশ গিয়ে কাজলের পরিবারকে নোটিস ধরায়। অভিযোগ, সেই সময়ে মোটরবাইকে কয়েক জন উপস্থিত হয়ে দুই সিভিক ভলান্টিয়ারকে মারধর এবং পুলিশের গাড়ি ভাঙচুর করে। এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশবাহিনী ঘটনাস্থলে গিয়ে 

আহত দু’জনকে উদ্ধার করে কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করেছে।