‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচিতে নেতাকে সামনে পেয়ে ক্ষোভ উগরে দিলেন এক বৃদ্ধা। তাঁর অভিযোগ, হতদরিদ্র হয়েও তিনি ও তাঁর স্বামী বার্ধক্য ভাতা পাচ্ছেন না। বৃহস্পতিবার বাগদার মেহেরানি গ্রামের ঘটনা। এ দিন সকালে বাগদা পূর্ব ব্লকের তৃণমূল সভাপতি ও জেলা পরিষদ সদস্য পরিতোষ সাহার নেতৃত্বে মেহেরানি গ্রামে ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচিতে যান তৃণমূল কর্মীরা। তখনই নেতাকে সামনে পেয়ে ক্ষোভ উগরে দেন গ্রামের বাসিন্দা মিনতি সরকার। তিনি বলেন, ‘‘আমার বয়স ষাট পেরিয়েছে। স্বামীর বয়স পঁচাত্তর। দিনমজুরি করে, ভ্যান চালিয়ে কোনওরকমে চলে। কিন্তু আমরা বার্ধক্য ভাতা পাই না। অথচ গ্রামেরই অনেক পয়সাওয়ালা মানুষ এই সুবিধা পাচ্ছেন।’’ বিব্রত নেতা জানতে চান, তিনি আবেদন করেছিলেন কিনা। উত্তরে মিনতি জানান, কাগজপত্র ফটোকপি করে জমা দিতে দিতে হাজার টাকার উপর খরচ হয়ে গিয়েছে। নাম ঠিকানা লিখে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন পরিতোষ।