সরকারি নিয়ম না মেনে নদীবাঁধের কাছ থেকে বিপজ্জনক ভাবে বালি তোলার অভিযোগ উঠল আউশগ্রামে। সংশ্লিষ্ট বালি খাদান মালিকের বিরুদ্ধে প্রশাসনের কাছে লিখিত অভিযোগ করলেন এলাকার বাসিন্দারা। বিষয়টি খতিয়ে দেখে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে ব্লক প্রশাসন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, আউশগ্রাম ২ ব্লকে অজয়ে বেশ কয়েকটি অনুমোদিত বালি খাদান রয়েছে। সেগুলির মধ্যে ভেদিয়া পঞ্চায়েত এলাকার সাগরপুতুল গ্রামের কাছে একটি খাদানে নিয়ম না মেনে বালি তোলা হচ্ছে বলে অভিযোগ স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশের। তাঁদের দাবি, বাঁধের কাছাকাছি এলাকা থেকে প্রায় ৪০ ফুট গভীর করে বালি তোলা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট খাদান মালিককে বারবার বলা সত্ত্বেও তা শোনা হচ্ছে না বলে অভিযোগ গ্রামবাসীর। এর ফলে বাঁধের ক্ষতি হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন তাঁরা।

বাসিন্দাদের আরও দাবি, নদীতে জল থাকার সময়ে ওই সমস্ত গর্তে ডুবে যাওয়ারও আশঙ্কা থাকে। কয়েক মাস আগেই এই এলাকায় ভিন্‌ জেলার এক রংমিস্ত্রি স্নান করতে নেমে ডুবে মারা গিয়েছেন বলে জানান তাঁরা। এ নিয়ে ব্লক প্রশাসনের কাছে এলাকাবাসীর তরফে লিখিত অভিযোগও করা হয়েছে। তাঁদের আরও অভিযোগ, কয়েক মাস আগেই ব্লক প্রশাসনের তরফে বৈঠক করে প্রত্যেকটি খাদানে সিসি ক্যামেরা বসানোর নির্দেশ দেওয়া হলেও অনেক খাদানেই তা হয়নি। ফলে, খাদানের অনিয়ম ধরার উপায় থাকছে না।

 দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

বিডিও (আউশগ্রাম ২) সুরজিৎ ভর জানান, ব্লক ভূমি ও ভূমি সংস্কার আধিকারিককে অভিযোগ খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। বালি খাদানগুলিতে সিসি ক্যামেরা চালু আছে কি না তা-ও খতিয়ে দেখা হবে বলে আশ্বাস তাঁর। ব্লক ভূমি ও ভূমি সংস্কার আধিকারিক ইন্দ্রাণী সরকার জানান, খুব তাড়াতাড়ি ওই বালি খাদানে গিয়ে সরেজমিনে পরিদর্শন করে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে রিপোর্ট পাঠানো হবে।