• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

পরীক্ষার ফলে ভুল, বিক্ষোভ বিশ্ববিদ্যালয়ে

ন’মাস পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিএসসি এবং বিকম পার্ট ২ পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হলেও পাঁচশোরও বেশি পরীক্ষার্থীর ফল অসম্পূর্ণ। শুক্রবার রাতে ওয়েবসাইটে ফল দেখে এমনই অভিযোগ করেন পড়ুয়ারা। তাঁদের আরও দাবি, অনেকের রোল নম্বরই ওয়েবসাইটে নেই। তাছাড়া মার্কশিট কবে দেওয়া হবে সে তথ্যও দেওয়া হয়নি। এ নিয়ে সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ামক দফতরে বিক্ষোভও দেখান কয়েকশো ছাত্রছাত্রী। তবে রেজিস্ট্রারের দফতরের ঢোকার আগেই তাদের আটকে দেয় পুলিশ।

বিক্ষোভকারীদের মধ্যে শুভাশিস ঘোষ, ইন্দ্রনীল সাঁতরাদের অভিযোগ, এই ভুল কাঙ্খিতই ছিল। কারণ ন’মাসে যে ফল প্রকাশিত হয়নি তা শুক্রবার রাতে প্রকাশিত হয়েছে। আগের দিন বিক্ষোভ দেখানোর ফলেই তড়িঘড়ি ফল প্রকাশ করা হয় বলে তাঁদের দাবি। বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বারবার ফলে ভুল নিয়ে ক্ষুব্ধ পরীক্ষা নিয়ামকও। যে সংস্থাকে ফলাফল প্রকাশের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল তাদের বদলের কথাও এ দিন বলেন তিনি। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের সাধারণ সম্পাদক আমিরুল ইসলাম ও সভাপতি প্রদীপ বাজপেয়ী জানান, কেন এই ভুল হল, তা অবিলম্বে তদন্ত করতে হবে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে। দোষী প্রমাণিত হলে পদাধিকারীদের শাস্তিও দিতে হবে। এ দিন কাটোয়া কলেজ থেকেও এসেও প্রায় শতাধিক ছাত্রছাত্রী বিক্ষোভ দেখান। জেলা ছাত্র পরিষদ নেতা অভিজিত্‌ ভট্টাচার্য বলেন, “টানা ন’মাস পরে যে ফল প্রকাশিত হয়েছে তাতে ভুল অবাঞ্ছনীয় ছিল। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের যেন অভ্যাস হয়ে গিয়েছে পরীক্ষার ফলে ভুল করা। আমরা চাই বিশ্ববিদ্যালয় অবিলম্বে এই ভুল সংশোধন করুক। তার সঙ্গে বিএ পার্ট ২ পরীক্ষার ফল দ্রুত প্রকাশিত হোক।”

পরীক্ষা নিয়ামক দীপককুমার সোম বলেন, “মার্কশিট যাতে নির্ভুল প্রকাশ করা যায় সে জন্য চার জন পরীক্ষা দফতরের আধিকারিক কলকাতায় রয়েছেন। প্রতিদিন রাত ন’টা পর্যন্ত কাজ করছে আমার দফতর। তবে নির্ভুল মার্কশিট ছাত্রদের হাতে তুলে দিতে সময় লাগবে। কবে নাগাদ তা প্রকাশিত হবে তা বলতে পারছি না।” তিনি আরও বলেন, “যে সংস্থা এই ফলাফল প্রকাশের দায়িত্বে রয়েছে বছর দুই ধরে, পরপর কয়েকটি পরীক্ষায় তাদের যে নমুনা পেয়েছি, তাতে আমরা নাজেহাল।” এ নিয়ে উপাচার্যের সঙ্গে আলোচনা করবেন বলেও আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন