মহকুমা শাসকের দফতরের সামনেই গাছের গায়ে পেরেক মেরে লাগানো হয়েছিল বিজ্ঞাপন। শুধু তাই নয়, নীল সাদা রংও করা হয়েছে গাছের গুঁড়িতে। উলুবেড়িয়ার এই ছবি বুধবার সংবাদপত্রে প্রকাশিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই পদক্ষেপ নিল প্রশাসন। এ দিন সকালে গাছের গা থেকে খুলে নেওয়া হয় সমস্ত বিজ্ঞাপন। তবে নীল সাদা রং অবশ্য রয়ে গিয়েছে এখনও।

স্থানীয়রা বলছেন, উলুবেড়িয়া মহকুমা শাসকের কার্যালয়ের সামনে দীর্ঘদিন ধরেই গাছে পেরেক গেঁথে পোস্টার লাগানো হত। তা বন্ধ হওয়ায় খুশি এলাকার মানুষ। স্থানীয় এক ব্যবসায়ী বলেন, ‘‘গাছে এইভাবে পেরেক মেরে বিজ্ঞপন দেওয়া আইনত নিষিদ্ধ। তারপরেও কিছু ব্যবসায়ী এবং রাজনৈতিক দল তাদের প্রচারের জন্য এই কাজ করে গিয়েছে। দেরিতে হলেও প্রশাসনের টনক নড়েছে। তার জন্য ধন্যবাদ। আবার এই কাজ হলে প্রশাসনের উচিত জরিমানা করা।’’

স্থানীয় বাসিন্দা ও নাট্যকার অনুপ চক্রবর্তী বলেন, ‘‘গাছের গায়ে এইভাবে রঙ করা ও পেরেক মারা একেবারেই ঠিক নয়। এতে গাছের বৃদ্ধি কমে যায় এবং গাছ মরেও যায়। যেটা বড় ক্ষতি। যারা এই কাজ করছে তাদের জেল ও জরিমানা দুটোই করা উচিত।’’ উলুবেড়িয়া বন দফতরের রেঞ্জার উৎপল সরকার বলেন, ‘‘গাছের গায়ে রঙ না করা এবং পেরেক মেরে বিজ্ঞপন না দেওয়ার জন্য আমরা বারবার প্রচার করি। তারপরেও কিছু মানুষ এই কাজ করছেন। আগামী দিনে প্রচার জোরদার হবে।’’ উলুবেড়িয়া মহকুমা শাসক তুষার সিংলা
জানান, শহরের যে সমস্ত গাছে এইভাবে পেরেক গেঁথে পোস্টার লাগানো আছে, সেগুলো সব খুলে ফেলা হবে।