ব্যান্ডেলে লকেটের ভাড়াবাড়িতে হামলা
হুগলিতে তাল ঠোকাঠুকি বাড়ল বিজেপি-তৃণমূলে
সম্প্রতি গুড়াপে প্রচারে গিয়ে লকেট হুঙ্কার দেন— ‘ভোটের দিন শাসকদলের বিধায়ক ধনেখালিতে বাড়াবাড়ি করলে অথবা সাধারণ মানুষকে ভোট দিতে বাধা দিলে তাঁকে তুলে নিয়ে যাবেন’।
bjp

তছনছ: ভাঙা হয়েছে টিভি। এলোমেলো পড়ে ঘরের নানা জিনিস। ছবি: তাপস ঘোষ

হুগলি লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূল এবং বিজেপির তাল ঠোকাঠুকি চলছিলই। শুক্রবার ওই কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী লকেটে চট্টোপাধ্যায়ের ভাড়াবাড়িতে হামলার পরে সেই তাল ঠোকাঠুকির মাত্রা বাড়ল। তবে, রাত পর্যন্ত হামলাকারীদের পরিচয় জানাতে পারেনি পুলিশ। ধরাও পড়েনি কেউ।

সম্প্রতি গুড়াপে প্রচারে গিয়ে লকেট হুঙ্কার দেন— ‘ভোটের দিন শাসকদলের বিধায়ক ধনেখালিতে বাড়াবাড়ি করলে অথবা সাধারণ মানুষকে ভোট দিতে বাধা দিলে তাঁকে তুলে নিয়ে যাবেন’। ওই হুমকি হালকা ভাবে নেননি ধনেখালির তৃণমূল বিধায়ক অসীমা পাত্র। তিনি গুড়াপ থানায় বিজেপি প্রার্থীর বিরুদ্ধে অপহরণের হুমকির অভিযোগ করেন। নির্বাচন কমিশনেও বিষয়টি জানানো হয়। শুক্রবারের ঘটনায় বিজেপির অভিযোগ, তৃণমূ‌লের লোকেরাই লকেটের বাড়িতে হামলা চালিয়েছে। এ জন্য মোবাইলে তুলে রাখা ছবি সংবাদমাধ্যমকে দেন বিজেপি নেতারা। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী বিজেপি নেত্রীদের বক্তব্য, পান্ডুয়া, ধনেখালি, চুঁচুড়া থেকে অনেকে তৃণমূল ছেড়ে তাঁদের দলে নাম লিখিয়েছেন। সেই রাগেই শাসকদল এই কাণ্ড ঘটিয়েছে। লকেটের তোপ, ‘‘ওদের পায়ের তলার মাটি একটু একটু করে সরতে শুরু করেছে। ওরা হারার ভয় পাচ্ছে। এই আক্রমণ তারই নির্লজ্জ বহিঃপ্রকাশ।’’

পক্ষান্তরে তৃণমূলের দাবি, বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের কারণেই লকেটের বাড়িতে ভাঙচুর চলে। এ দিন তৃণমূল কর্মীরা সোশ্যাল মিডিয়ায় হামলার ছবি ছড়িয়ে দেন। তাঁদের বক্তব্য, বিজেপির ঝান্ডা নিয়েই হামলা চালানো হয়। এতেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রমাণিত। ওই ছবি তৃণমূলের তরফে পুলিশকেও দেওয়া হয়।

তবে, দলে যো গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব নেই, বিজেপির লোকেরা তা প্রমাণ করতে চেয়েছেন। সংবাদমাধ্যমের তরফে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের প্রশ্ন ওঠায় লকেট তা নস্যাৎ করে দেন। তিনি ব‌লেন, ‘‘ঘটনার পরই সুবীরদাকে (দলের হুগলি সাংগঠনিক জেলা সভাপতি সুবীর নাগ) ফোন করি। উনি পার্টি অফিস থেকে চলে আসেন।’’ দোতলার বারান্দায় দাঁড়িয়ে তাঁকে চেঁচিয়ে বলতে শোনা যায়, বিজেপিতে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব আদপেই নেই। সুবীর বলেন, ‘‘আমাদের আন্দোলনে আর প্রচারে শাসকদল বেআব্রু হয়ে যাচ্ছে। মহিলা প্রার্থীর বাড়িতে হামলা করতেও ওদের বাধল না।’’

চুঁচুড়ার তৃণমূল বিধায়ক অসিত মজুমদারের পাল্টা জবাব, ‘‘ওদের প্রার্থী আমাদের বিধায়ককে অপহরণের হুমকি দিয়ে বেরিয়ে এলেন। আর আমাদের ছেলেরা ওঁর বাড়িতে ভাঙচুর করবে! তৃণমূলের ঘাড়ে অযথা দোষ চাপিয়ে লাভ নেই। আমাদের ছেলেরা প্রচার কর্মসূচি নিয়ে ব্যস্ত। ওরা নিজেদের ঘর সামলাক।’’