সুন্দরবনের প্রত্যন্ত খাঁড়িতে অগভীর জলে দ্রুত গতির বোট নিয়ে নজরদারি চালানোর জন্য উপকূল রক্ষী বাহিনীর পূর্বাঞ্চলের সদর দফতরে এল একটি ‘ফাস্ট ইন্টারসেপটিভ বোট’ সি-৪২৪। মঙ্গলবার হলদিয়ায় নৌযানটির উদ্বোধন করেন তটরক্ষী বাহিনীর উত্তর–পূর্ব ভারতের ইন্সপেক্টর জেনারেল কেআর নটিয়াল।

উপকূল রক্ষী বাহিনী সূত্রে জানা গিয়েছে, সুরাতে নির্মিত এই নৌযানটি ২৭ মিটার লম্বা, ঘণ্টায় ৪৫ নটিকাল মাইল গতি সম্পন্ন। আধুনিক মেশিনগান, ইনফ্রা রেড ও নাইট ভিশন ক্যামেরাও রয়েছে। ফলে দিন ও রাতে সমান ভাবে নজরদারি চালাতে পারে এই যান। এতদিন হলদিয়ায় চারটি হোভারক্রাফট, দু’টি যুদ্ধ জাহাজ ছিল। এ বার নতুন আরও একটি নৌযান এল।

উপকূল রক্ষী বাহিনীর আধিকারিকরা এ দিন জানান, তটরক্ষী বাহিনীর আধিকারিকরা এ দিন জানান, পশ্চিমবঙ্গের সুন্দরবন ও সংলগ্ন এলাকায় ১৫৭ কিমি নজরদারি চালাবে এই নতুন ফাস্ট ইনটার সেপটিভ বোট সি–৪২৪। উত্তর-পূর্ব উপকূল নজরদারির পাশাপাশি বিপন্ন মৎস্যজীবী বা বাণিজ্যিক জাহাজকেও সুরক্ষা দিতে পারবে। হলদিয়ায় হুগলি নদীর বাদামি জলে কাজ করতে অসুবিধা হবে না। সুন্দরবনের প্রত্যন্ত খাঁড়ি এলাকার কম গভীর ধুসর জলে আধুনিক হোভারক্রাফট অনেক সময় কাজ করতে পারে না।