• নিজস্ব সংবাদদাতা 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

কোন্দল, সভামঞ্চ ছাড়লেন জেবের

tmc
প্রতীকী চিত্র।

বেশ কিছু দিন ধরেই ধোঁয়াচ্ছিল বিরোধ। শনিবার তা প্রকাশ্যে চলে এল। শনিবার তৃণমূলের মঞ্চ থেকে নেমে গেলেন চাপড়া ব্লক সভাপতি জেবের শেখ। তার ঘনিষ্ঠ মহলের দাবি, দলে বেশ কয়েক জন ফিরিয়ে নেওয়া হচ্ছে যাঁদের দলে আনতে জেবের শেখের আপত্তি আছে। 

চাপড়া ব্লকে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব দীর্ঘদিনের। রুকবানুর রহমান দলের প্রার্থী হয়ে এসেই তৎকালীন ব্লক সভাপতি হরিদাস প্রামাণিককে সঙ্গে নিয়ে নির্বাচনে প্রচার করেন। পরে হরিদাসকে সরিয়ে ক্ষমতায় আসেন সুখদেব ব্রহ্ম, তাঁকে সরিয়ে রাজীব শেখ ও জেবের শেখ। জেবের শুধু ব্লক সভাপতি নন, জেলা পরিষদ সদস্যও। রাজীব তৃণমূলের ব্লক যুব সভাপতি পদে রয়েছেন। 

তৃণমূলের একটি সূত্রের খবর, কিছু দিন ধরেই জেবের, রাজীব ও তাঁর বাবা কাংলা শেখের মধ্যে বিভাজন তৈরি হয়েছে। রাজীবরা এখন সুখদেব ব্রহ্মকে ফেরানোর চেষ্টা করছেন। তাতে প্রবল আপত্তি জেবেরের। এই নিয়ে জেবের আর রাজীবের ফাটল ফাটল চওড়া হচ্ছিল। এ দিন চাপড়ায় যুব তৃণমূলের তরফে ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচি নেওয়া হয়েছিল। সেখানে ব্লকের বিভিন্ন নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। মঞ্চে ছিলেন বিধায়ক রুকবানুর রহমান, রাজীব, জেবেরেরা। সুখদেব ব্রহ্ম উঠতেই মঞ্চ থেকে নেমে যান জেবের। 

এ প্রসঙ্গে সরাসরি সুখদেবের নাম না করেও জেবের বলেন, ‘‘এমন কয়েক জনকে দলে ফিরিয়ে নেওয়া হচ্ছে যারা লোকসভা ভোটে বিজেপির হয়ে কাজ করেছিল। তা কখনই মেনে নেওয়া সম্ভব নয়। শুধু তা-ই নয়, আমি ব্লক সভাপতি অথচ কাকে দলে ফেরানো হচ্ছে সে বিষয়ে আমার সঙ্গে আলোচনা করা হচ্ছে না।’’ রাজীব অবশ্য দাবি করেন, ‘‘তেমন কিছু ঘটনাই ঘটেনি। আমাদের মধ্যে কোনও বিভাজন নেই।’’ রুকবানুর বলেন, ‘‘নেত্রী বলেছেন, সবাইকে নিয়ে দল চালাতে হবে, সকলকে ফিরিয়ে আনতে হবে। তাঁর এই নির্দেশ সকলকেই মানতে হবে।’’  

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন