অবশেষে জামিন পেলেন রায়গঞ্জের মহকুমাশাসক থেন্ডুপ নামগিয়েল শেরপার উপর হামলা ও জাতীয় সড়ক অবরোধের অভিযোগে ধৃত তিন শিক্ষক।

সোমবার ওই তিন অভিযুক্ত মনোজ ভৌমিক, প্রদীপ সিংহ ও সঞ্জিত দাসের জামিনের সওয়াল করেন আইনজীবী তথা সিপিএম নেতা বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য। জামিনের বিরোধিতা করেন সরকারি আইনজীবী দেবাশিস গুহ। দু’পক্ষের সওয়াল শেষে বিচারক ১০ হাজার টাকা করে ব্যক্তিগত বন্ডে তাঁদের জামিন মঞ্জুর করেন। জাতীয় সড়ক অবরোধের মামলায় এই তিনজনকে আগামী ২ জুন রায়গঞ্জের এই মুখ্য বিচারবিভাগীয় আদালতেই তোলার কথা ছিল। কিন্তু এদিন প্রথম মামলায় জামিন মিলতেই অভিযুক্তদের আইনজীবীরা রাস্তা অবরোধ মামলায় তাঁদের জামিনের আবেদন করেন। তাতেও বিচারক জামিন মঞ্জুর করেন। 

বিকাশরঞ্জনের দাবি, ‘‘প্রিসাইডিং অফিসার রাজকুমার রায়ের মৃত্যুর তদন্ত ও ভোটকর্মীদের নিরাপত্তার দাবিতে শিক্ষকরা শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করছিলেন। মহকুমাশাসক রাজকুমার আত্মহত্যা করেছেন বলে সেখানে মন্তব্য করেন। ওই ঘটনার ১১ ঘণ্টা পর মহকুমাশাসক ও পুলিশ শিক্ষকদের ভয় দেখিয়ে তাঁদের মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়েছেন বলে অভিযোগ।’’ সরকারি আইনজীবীর বলেন, ‘‘জামিনের নির্দেশ খতিয়ে না দেখে কোনও মন্তব্য করব না।’’

রাজনৈতিক ভাবে ওই তিন শিক্ষকই তৃণমূলের শিক্ষক সংগঠনের সক্রিয় সদস্য বলে জানা গিয়েছে। মামলায় তাঁদের আইনজীবী হিসেবে বিকাশরঞ্জন দাঁড়ানোয় স্থানীয় রাজনীতিতে জল্পনা শুরু হয়েছে যে, এর পিছনে বামেদের একটা বড় ভূমিকা রয়েছে। তবে বিকাশরঞ্জন বলেন, ‘‘নির্দোষ শিক্ষকদের হয়রানির খবর পেয়েই আমি এখানে এসেছি।’