• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ছোটদের সঙ্গে খেলুন বাড়ির ছাদেও

Children during Lockdown
ফাইল চিত্র

একে ঋতু বদল, তার উপরে করোনার হানা। ‘লকডাউন’ হওয়ার ফলে সকলে মিলে গৃহবন্দিও। চট করে ডাক্তারের কাছে যাওয়ার উপায় নেই। তাই এখন কী করবেন, কী করবেন না— এই নিয়ে বিভিন্ন বিষয়ে রইল বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের পরামর্শ। 

লকডাউনে ২১ দিন ‘ঘরবন্দি’ ছোটদের মন কী ভাবে ভাল রাখবেন তা নিয়ে পরামর্শ দিয়েছেন রায়গঞ্জ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর তথা মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক আশিস দেবনাথ।
• এখন বাড়ির ছোটদের স্কুল, গান, নাচ, আঁকা, ব্যায়াম-সহ অন্য সব ক্লাস বন্ধ। বড়রাও সারা দিন বাড়িতে রয়েছেন। এই সময়ে যদি তাঁরা ছোটদের পড়াশোনা দেখানোর পাশাপাশি গান, নাচ, আঁকা, ব্যায়ামেও উৎসাহ দিতে পারেন, তা হলে কারও মানসিক ক্লান্তি আসার কথা নয়।
•বাড়ির ছোট ও বড়রা একসঙ্গে বসে লুডো, ক্যারাম, দাবা খেলা যায়। বাড়ির উঠোন বা ছাদে নানা ধরণের খেলাও হতে পারে। এতে যেমন শরীরচর্চা হবে, তেমনই একঘেয়েমি আসবে না।
• আঁকার মাধ্যমে ছোটদের করোনাভাইরাস সম্পর্কে সচেতন করা যেতে পারে। বাড়ির সব সদস্য মিলে একসঙ্গে বসে গান শোনা বা টিভি দেখতে পারেন।  
• স্কুল বন্ধ। তাই বাড়ির বড়দের পাঠ্যক্রম দেখে ছোটদের পড়ানো উচিত। তাতে স্কুল খুললে ছোটদের পাঠ্যক্রম শেষ করতে সমস্যা হবে না।
• এক দিন বাড়ির ছোট ও বড় সবাই মিলে মজার ছলে ঘর পরিষ্কার করা যেতে পারে। এতে যেমন ছোটরা পরিচ্ছন্নতা নিয়ে সচেতন হবে, তেমনই সময়ও অনেকটা কেটে যাবে।
• লকডাউনে ছোটদের শারীরিক বা মানসিক কোনও সমস্যা হচ্ছে কিনা, তা বোঝার চেষ্টা করতে হবে। তেমন কোনও সমস্যা মনে হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন