ময়নাগুড়ির ভোটপট্টিতে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর পরিবারকে অর্থের বিনিময়ে অভিযোগ প্রত্যাহারের পরামর্শ দেওয়ার অভিযোগ উঠল অভিযুক্ত তৃণমূল কংগ্রেস নেতাদের বিরুদ্ধে৷ না হলে ওই পরিবারকে রাজ্য ছাড়া করা হবে বলেও হুমকি দিয়েছেনওই নেতারা৷

জমি নিয়ে বিবাদের জেরে মঙ্গলবার ময়নাগুড়ির ভোটপট্টিতে পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ পায়েল সরকারের পেটে লাথি ও কোদালের বাঁট দিয়ে আঘাত করার অভিযোগ ওঠে তৃণমূল কংগ্রেসের পদমতি-১ এর অঞ্চল সভাপতি শান্ত বসাক ও তাঁর অনুগামীদের বিরুদ্ধে। অভিযোগ, বধূর পরিবারের প্রায় দেড় বিঘা জমি দখল করার চেষ্টা করছিলেন ওই নেতারা৷ মঙ্গলবার তা নিয়ে বিবাদ বাধলে পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ওই বধূকে অভিযুক্তরা পেটে লাথি ও কোদালের বাঁট দিয়ে আঘাত করে বলে অভিযোগ৷ তারপরই তাকে জলপাইগুড়ি জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়৷

বধূর মা সন্ধ্যা রায় বুধবার রাতেই অভিযোগ করেছিলেন যে, তার মেয়েকে হাসপাতাল থেকে ছুটি করিয়ে বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছিল৷ হাসপাতালের এক চিকিৎসক তাকে এ ব্যাপারে চাপ দেন৷ বধূর ভাসুর শুভলাল সরকারের চাঞ্চল্যকর অভিযোগ, শান্ত বসাকের ঘনিষ্ঠ ওই তৃণমূল নেতারা তাকে অর্থের বিনিময়ে অভিযোগ প্রত্যাহার করার পরামর্শ দিয়েছেন৷ তা না হলে তাদের শুধু এলাকা ছাড়া করাই নয় রাজ্য ছাড়া করা হবে বলেও হুমকি দিয়েছেন।  যদিও পুলিশের দাবি, এখনও পর্যন্ত এ ব্যাপারে তাদের কাছে কোনও অভিযোগ জানাননি ওই বধূর বাড়ির লোকজন৷ জেলা পুলিশের এক কর্তা বলেন, ‘‘অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি চলছে৷ কাউকে এখনও পাওয়া যায়নি৷’’ যদিও গ্রামের মানুষের বক্তব্য, অভিযুক্তদের কয়েকজনকে এ দিনও এলাকায় দেখা গিয়েছিল৷ আর কয়েক জন ময়নাগুড়িতে দলের এক নেতার বাড়িতে লুকিয়ে আছেন বলে সন্দেহ তাদের৷

অভিযুক্ত তৃণমূল কংগ্রেসের অঞ্চল সভাপতি শান্ত বসাক এ দিন সন্ধ্যায় টেলিফোনে জানান, বৃহস্পতিবার দিনের বেলায় তিনি এলাকাতেই ছিলেন৷ বিকালের দিকে জরুরি কাজে জলপাইগুড়ি এসেছেন৷ বধূকে হাসপাতাল থেকে ছুটি নিতে চাপ কিংবা অভিযোগ প্রত্যাহার না করলে রাজ্য ছাড়া করার হুমকির কথাও অস্বীকার করেন তিনি৷ ময়নাগুড়ির তৃণমূল কংগ্রেস নেতা শশাঙ্ক বসুনিয়া বলেন, ‘‘যাদের বিরুদ্ধে ওই বধূর বাড়ির লোকেরা অভিযোগ তুলছেন তারা সকলেই নির্দোষ৷’’

হাসপাতাল সূত্রের খবর, ওই বধূর অবস্থা আগের থেকে খানিকটা ভাল৷ তাঁকে চাপ দিয়ে ছুটি দেওয়ার কথাও মানতে চাননি হাসপাতালের কর্তারা৷