• পার্থ চক্রবর্তী
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

সংরক্ষণের ধাক্কা সামলে কে কোথায়

cpm and tmc
প্রতীকী ছবি

সংরক্ষণের গেরোয় আসন্ন পুর নির্বাচনে নিজের নিজের ওয়ার্ড থেকে এবার দাঁড়াতে পারবেন না পুরসভার দুই প্রাক্তন চেয়ারম্যান তৃণমূলের আশিস দত্ত ও সিপিএম অনিন্দ্য ভৌমিক। যদিও সিপিএম সূত্রের খবর, অনিন্দ্যকে অন্য কোনও ওয়ার্ড থেকে প্রার্থী করার ব্যাপারে দলে ভাবনা শুরু হয়েছে। তবে আশিসকে অন্য ওয়ার্ড থেকে টিকিট দেওয়ার প্রশ্নে অবশ্য তৃণমূলের নেতারা বল ঠেলছেন রাজ্য নেতৃত্বের কোর্টে। আশিস ঘনিষ্ঠদের সূত্রের খবর, দল টিকিট না দিলে নির্দল প্রার্থী হয়ে লড়তে পারেন তিনি।

২০১৩ সালে আলিপুরদুয়ারে শেষবার পুরভোট হয়েছিল। সেবার ক্ষমতা দখল করে বামেরা। চেয়ারম্যান হন সিপিএমের অনিন্দ্য ভৌমিক। মাত্র এক বছরের মধ্যেই কংগ্রেস কাউন্সিলরদের নিজেদের দিকে টেনে নিয়ে পুরসভার ক্ষমতা দখল করে নেয় তৃণমূল। সেই সময় চেয়ারম্যান হন আশিস দত্ত। ২০১৮ সালের অক্টোবরে তৃণমূল পরিচালিত ওই পুরবোর্ডের মেয়াদ শেষ হওয়ার মাস দুয়েক আগে আসন সংরক্ষণের তালিকা প্রকাশ করে প্রশাসন। যাতে আরও কয়েকটি ওয়ার্ডের সঙ্গে ২ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ডও সংরক্ষণের তালিকায় চলে আসে। গত পুরভোটে এই ২ নম্বর ওয়ার্ড থেকে প্রার্থী হন আশিস। ৩ নম্বর ওয়ার্ডে দাঁড়িয়েছিলেন অনিন্দ্য।

কিন্তু ওয়ার্ড দু’টি সংরক্ষণের তালিকায় ঢুকে পড়ায় এই দুই প্রাক্তন চেয়ারম্যান এবার কোন ওয়ার্ড থেকে প্রার্থী হবেন, তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে জল্পনা শুরু হয়েছে। সিপিএম সূত্রের খবর, ৩ নম্বর ওয়ার্ড না হলেও অন্য কোনও ওয়ার্ড থেকে অনিন্দ্যকে দাঁড় করাতে চাইছেন দলের নেতারা। প্রাথমিক ভাবে দলের অন্দরে দু’টি ওয়ার্ড নিয়ে আলোচনাও শুরু হয়ে গিয়েছে। অনিন্দ্য বুধবার বলেন, ‘‘নির্বাচনের লড়াইয়ে দলের সঙ্গে আমি রয়েছি। ভোটে দাঁড়ানো নিয়ে দল যা সিদ্ধান্ত নেবে সেটাই চূড়ান্ত।’’

কিন্তু অন্য কোনও ওয়ার্ড থেকে আশিস দত্তকে টিকিট দেওয়ার প্রশ্নে অবশ্য এখনও স্পষ্ট কোনও উত্তর মিলছে না তৃণমূলের অন্দর থেকে। বরং কোনও কোনও নেতা বিষয়টি নিয়ে রাজ্য নেতৃত্বের কোর্টেও বল ঠেলছেন। তবে তৃণমূলের জেলা সভাপতি মৃদুল গোস্বামী অবশ্য বলেন, ‘‘আশিস দত্ত অনেকদিনের কাউন্সিলর। পুরসভা পরিচালনায় অনেক অভিজ্ঞতা রয়েছে তাঁর। দল মনে করলে নিশ্চয়ই তিনি প্রার্থী হবেন।’’

সূত্রের খবর, আশিস দত্ত এর আগে নির্দল প্রার্থী হিসেবে ভোটে জয়লাভ করেও চেয়ারম্যান হয়েছিলেন। নিজের ২ নম্বর ওয়ার্ডের বাইরে অন্য ওয়ার্ড থেকে লড়াই করেও জয়ী হয়েছেন তিনি। এই অবস্থায় দল টিকিট না দিলে অন্য কোনও ওয়ার্ড থেকে নির্দল হিসেবে এবারও তিনি লড়াই করতে পারেন বলে ধারণা আশিস-ঘনিষ্ঠ নেতাদের। যদিও সেই সম্ভাবনার কথা মানতে নারাজ আশিস। বরং, সিপিএমের অনিন্দ্যের মতো তাঁরও সাফ কথা, ‘‘দল টিকিট দিলে তবেই নির্বাচনে লড়ব।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন