হঠাৎ অর্থপ্রাপ্তি। ব্যাঙ্ক অ্যাকান্টের পাসবই আপডেট করাতে গিয়ে চমকে উঠলেন গ্রাহকেরা। কারও অ্যাকাউন্টে অতিরিক্ত চার হাজার, তো কারও প্রাপ্তি চোদ্দো হাজার টাকা। এমন অপ্রত্যাশিত অর্থপ্রাপ্তির ঘটনাকে কেন্দ্র করে রীতিমতো হইচই পড়ে গিয়েছে ছাতনার খড়বনা-সহ বেশ কয়েকটি গ্রামে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের খড়বনা শাখার গ্রাহকদের একাংশের অ্যাকাউন্টে গত কয়েক দিন ধরেই টাকা ঢুকছে বলে খবর। 

খড়বনার বাসিন্দা পেশায় কাপড় ব্যবসায়ী সুদর্শন কুণ্ডু বলেন, “বৃহস্পতিবার ব্যাঙ্কে পাসবই আপডেট করাতে গিয়ে দেখি ছ’হাজার টাকা আমার অ্যাকাউন্টে জমা হয়েছে। কোথা থেকে ওই টাকা এল কিছুই বুঝতে পারছি না।” 

খড়বনার আর এক বাসিন্দা উত্তম কুণ্ডু জানাচ্ছেন, তিনিও ব্যাঙ্কের পাসবই আপডেট করাতে গিয়ে দেখেন তাঁর অ্যাকাউন্টে প্রায় সাড়ে চোদ্দ হাজার টাকা জমা হয়েছে। এই টাকা কোথা থেকে এল, কেন এল তা বুঝে উঠতে পারছেন না তিনি। উত্তমবাবু বলেন, “ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষকে ঘটনাটি জানিয়েছি।” 

ওই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের খড়বনা শাখার তরফে জানানো হয়েছে, বেশ কয়েকজন গ্রাহকই তাঁদের অ্যাকাউন্টে অর্থ জমা হওয়ার ঘটনা জানিয়েছেন। তবে কী ভাবে ও কেন ওই টাকা গ্রাহকদের অ্যাকাউন্টে আসছে তার উত্তর ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষের কাছেও নেই। 

ওই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের বাঁকুড়া রিজিওনাল ম্যানেজার বিদ্যাসাগর প্রধান বলেন, “কোনও সরকারি বা বেসরকারি প্রকল্পে বিনিয়োগ করা থাকলে বা বিমা থাকলে অনেক সময় টাকা আসে। এ ক্ষেত্রে কেন গ্রাহকদের অ্যাকাউন্টে টাকা জমা হচ্ছে তার কারণ খতিয়ে দেখছি।”