ফট ফট করে জ্বলে উঠল আলো। স্নায়ু টানটান করে অস্ত্রোপচারের জন্য মনসংযোগ করলেন চিকিৎসক। রোগী অবশ্য কোনও মানুষ নয়। নকল মানবদেহ। আস্ত একটি গাড়িকে অপারেশন থিয়েটার তৈরি করে রাজ্যের বড় বড় হাসপাতালে ঘুরে ল্যাপারোস্কোপিক অস্ত্রোপচারের প্রশিক্ষণ দেওয়া শুরু হয়েছে। সেই ভ্রাম্যমাণ অপারেশন থিয়েটার এসেছে বাঁকুড়া মেডিক্যালে। সোমবার থেকে সেখানেই শুরু হয়েছে চার দিনের প্রশিক্ষণ শিবির। 

বাঁকুড়া মেডিক্যালের অধ্যক্ষ পার্থপ্রতিম প্রধান জানান, একটি বেসরকারি সংস্থার তরফে ভ্রাম্যমাণ অপারেশন থিয়েটার পাঠানো হয়েছে। যার মধ্যে ল্যাপারোস্কোপি অস্ত্রোপচারের জন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ও নকল মানবদেহ রয়েছে। বাঁকুড়া মেডিক্যালের শল্য বিভাগের ৫১ জন এবং স্ত্রীরোগ ও প্রসূতি বিভাগের ৪৫ জন জুনিয়র ডাক্তার এখানে প্রশিক্ষণ নেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন। 

প্রশিক্ষণের নেতৃত্বে রয়েছেন হাসপাতালের শল্য বিভাগের প্রধান উৎপল দে এবং স্ত্রী রোগ ও প্রসূতি বিভাগের প্রধান অনিন্দ্যকুমার দাস। 

উৎপলবাবু বলেন, “নকল মানবদেহে ল্যাপারোস্কোপি অস্ত্রোপচারের প্রশিক্ষণ নেওয়ার সুযোগ এই রাজ্যে নেই। এর জন্য চিকিৎসকদের ছুটি নিয়ে মোটা অঙ্কের টাকা খরচ করে ভিন রাজ্যে যেতে হত। কিন্তু ভ্রাম্যমাণ অপারেশন থিয়েটার হাসপাতালেই সেই সুযোগের ব্যবস্থা করে দিয়েছে।”

গত কয়েক বছরে বাঁকুড়া মেডিক্যালে একাধিক জটিল ল্যাপারোস্কোপি অস্ত্রোপচার সাফল্যের সঙ্গে হতে দেখা গিয়েছে। অধ্যক্ষ বলেন, “এই প্রশিক্ষণ পর্ব শেষ হয়ে যাওয়ার পরে ছ’মাস বা এক বছরের মধ্যে আরও একবার যাতে জুনিয়র ডাক্তারদের এই সুযোগ দেওয়া যায়, সেই ব্যবস্থা করব।”