এনআরএস কান্ডের পরে বর্ধমানের গোদার খন্দেকরপাড়া তারপরে টালিগঞ্জ – একের পর এক কুকুরের উপরে হামলার অভিযোগ। এবার সিউড়িতে সদ্যোজাত কুকুর ছানার পায়ে ব্লেড দিয়ে কাটার অভিযোগে এক যুবককে আটক করল পুলিশ। যদিও ওই যুবক মানসিক রোগী বলে চদন্তকারীদের দাবি। তাই অভিযোগ পেয়ে আটক করলেও তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন  স্থানীয় একটি পশুপ্রেমী সংগঠনের সদস্যরা। 

সিউড়ির ওই সংগঠনের সদস্য সিরাজুল মনির বলেন, ‘‘গত মঙ্গলবার আমাদের কাছে কাছে একটি খবর আসে যে ডাঙ্গালপাড়ার এক যুবক একটি সদ্যোজাত কুকুর ছানার পা ব্লেড দিয়ে কেটে দিয়েছে। অন্য সদস্যদের নিয়ে ওই এলাকায় গিয়ে দেখি ওই যুবক আচমকাই কুকুরটির পা ব্লেড দিয়ে কেটে দিয়েছে। কিন্তু কেন এমন করল কেউ বলতে পারেনি।’’  সিরাজুল ও তাঁর সঙ্গীরা কুকুরটিকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা করান এবং সিরাজুল নিজের বাড়িতে নিয়ে যান। তার নিয়মিচ চিকিৎসা করাচ্ছেন ওই পশুপ্রেমীই। তিনি জানান, কুকুরটা এখন আগের থেকে ভাল আছে। তবে বিপদ পুরোপুরি কাটেনি। তাঁর অভিযোগ, ‘‘অভিযুক্ত যুবককে পুলিশ ওই দিন ধরে নিয়ে যায় ঠিকই। কিন্তু পরে ছেড়ে দিয়েছে বলে শুনলাম। তাহলে আর কি লাভ হল?’’ 

যদিও পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে যে, ওই যুবক মানসিক ভারসাম্যহীন। তাঁর পরিবারের লোককে চিকিৎসার জন্য বলা হয়েছে।