Advertisement
২২ জুন ২০২৪

নাইটদের সংবর্ধনা ঘিরে চূড়ান্ত বিশৃঙ্খল ইডেন

মমতা এলেন। এলেন শাহরুখ। হল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সংবর্ধিত করা হল কলকাতা নাইট রাইডার্সকে। ইডেন মাতল। আর এর মাঝে পড়ে দিক্ভ্রান্ত হলেন নায়কদের চোখের সামনে দেখতে আসা ক্রীড়াপ্রেমী মানুষ। কেননা, মঙ্গলবার টিম কেকেআর-এর সংবর্ধনা অনুষ্ঠান ঘিরে বিশৃঙ্খল হয়ে ওঠে ইডেন চত্বর। ভিড়ের চাপে পদপিষ্ট হয়েছেন অনেকে। জনতার ছোড়া ঢিলের পাশাপাশি পুলিশের লাঠির আঘাতে রক্তাক্ত হতে হয়েছে অনেককে।

বিশৃঙ্খল ইডেন চত্বর। মঙ্গলবার দেশকল্যাণ চৌধুরীর তোলা ছবি।

বিশৃঙ্খল ইডেন চত্বর। মঙ্গলবার দেশকল্যাণ চৌধুরীর তোলা ছবি।

নিজস্ব সংবাদদাতা
শেষ আপডেট: ০৩ জুন ২০১৪ ১৩:৫২
Share: Save:

মমতা এলেন। এলেন শাহরুখ। হল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সংবর্ধিত করা হল কলকাতা নাইট রাইডার্সকে। ইডেন মাতল। আর এর মাঝে পড়ে দিক্ভ্রান্ত হলেন নায়কদের চোখের সামনে দেখতে আসা ক্রীড়াপ্রেমী মানুষ। কেননা, মঙ্গলবার টিম কেকেআর-এর সংবর্ধনা অনুষ্ঠান ঘিরে বিশৃঙ্খল হয়ে ওঠে ইডেন চত্বর। ভিড়ের চাপে পদপিষ্ট হয়েছেন অনেকে। জনতার ছোড়া ঢিলের পাশাপাশি পুলিশের লাঠির আঘাতে রক্তাক্ত হতে হয়েছে অনেককে।

ভোর থেকেই ক্রিকেটপ্রেমী মানুষেরা ভিড় জমাতে শুরু করেছিলেন ইডেনে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে প্রায় ভরে ওঠে ইডেন চত্বর। কিন্তু অনেকের কাছেই মাঠে ঢোকার কোনও প্রবেশপত্র ছিল না। তাই নিয়ে চরম বিভ্রান্তি তৈরি হয়। বেলা ১টা নাগাদ ইডেনে ঢোকার বিভিন্ন গেটে আটকে পড়ে জনতা। শুরু হয় পুলিশের সঙ্গে বাদানুবাদ, ধস্তাধস্তি। পরিস্থিতি সামলাতে মাউন্টেড পুলিশ এক প্রস্থ লাঠিও চালায় বলে অভিযোগ।

বেলা আড়াইটে নাগাদ কেকেআর-এর ‘টিম বাস’ ইডেনে ঢোকার সঙ্গে সঙ্গে বাইরে দর্শকদের উন্মাদনা চরমে ওঠে। তাঁদের একটাই দাবি, ‘টিকিট ছাড়াই ঢুকতে দিতে হবে’। ব্যারিকেড ভেঙে ইডেনের ক্লাবহাউস গেট দিয়ে ঢোকার চেষ্টা করেন অনেকেই। লাঠি নিয়ে পুলিশ তেড়ে যায় দর্শকদের দিকে। হঠাৎ মাঠের উল্টো দিক থেকে পুলিশকে লক্ষ করে ছোড়া হতে থাকে ঢিল। পুলিশও জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে লাঠি চালাতে শুরু করে। ঢিল ও লাঠির আঘাতে আহত হন বেশ কয়েক জন।

তবে এ সব ঘটনা ছাপিয়ে যায় বেলা ৪টে নাগাদ ইডেনে শাহরুখ আসার পর। চার নম্বর গেটের বাইরে তখনও অপেক্ষমান কয়েক হাজার দর্শক মাঠে ঢোকার চেষ্টা করছেন। পুলিশ তাঁদের দিকে তেড়ে যেতেই ফের ছত্রভঙ্গ জনতা। ঠিক এই সময়ে ইডেনের ভিতর থেকে বেরিয়ে এসে বাইরে অপেক্ষমান সকলকেই ভিতরে ঢুকতে দিতে পুলিশকে নির্দেশ দেন রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। তাঁর নির্দেশ মেনে চার নম্বর গেট সর্বসাধারণের জন্য খুলে দিতেই পরিস্থিতি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। কাতারে কাতারে মানুষ ঢুকতে শুরু করে ইডেনের ভিতর। এদের কারও কাছেই মাঠে ঢোকার প্রবেশপত্র ছিল না বলে পুলিশের অভিযোগ।

টিম কেকেআর-এর সংবর্ধনা। ছবি: সুমন বল্লভ।

সোমবার নবান্নে ক্রীড়ামন্ত্রী মদন মিত্র জানিয়েছিলেন, কলকাতার প্রতিটি থানা থেকে ইডেনে ঢোকার প্রবেশপত্র পাওয়া যাবে। কিন্তু উৎসাহী ক্রীড়াপ্রেমীদের তুলনায় সেই সংখ্যা ছিল যথেষ্ট কম। অনেকেই থানায় গিয়ে প্রবেশপত্র পাননি বলে অভিযোগ। তাতেও নিরাশ না হয়ে এ দিন সকাল থেকেই তাঁরা ভিড় করেন ইডেন চত্বরে। যদি কোনও ভাবে একটি প্রবেশপত্র পাওয়া যায়। কিন্তু বেলা বাড়লেও তাঁদের হাতে এসে পৌঁছয়নি ইডেনে ঢোকার ছাড়পত্র। স্বাভাবিক ভাবেই ইডেনের বাইরে তৈরি হয় চূড়ান্ত বিশৃঙ্খলা।

শুধু ফিরহাদ হাকিমই নন, দুপুর দেড়টা নাগাদ প্রায় একই নির্দেশ দিয়েছিলেন রাজ্যের যুব কল্যাণমন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস। ক্লাব হাউস গেটের সামনে তখন প্রচুর মানুষ। পুলিশকে তিনি নির্দেশ দেন, “ভিতরে প্রচুর আসন ফাঁকা রয়েছে। বাইরে যাঁরা অপেক্ষা করছেন তাঁদের ভেতরে ঢুকতে দিন।”

পুলিশ যদিও এ দিন সকাল থেকে প্রবেশপত্র ছাড়া ইডেনে দর্শকদের ঢুকতে দেওয়ার বিরোধী ছিল। সোমবার রাতে স্থানীয় থানায় গিয়ে টিকিট পাননি, এমন অভিযোগ পুলিশ শুনতে নারাজ। তাদের একটাই কথা, ‘টিকিট নেই তো ইডেনে ভিড় করবেন না।’ পুলিশের এই কথা দর্শকেরা কোনও ভাবেই কানে তোলেননি। আর এই চাপানউতোরের মাঝে পড়ে চূড়ান্ত উত্তপ্ত হল সংবর্ধনার আসর।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

eden
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE