বহু বিতর্কের শেষে আজ মুক্তি পেল মধুর ভান্ডারকরের ‘ইন্দু সরকার’। কেন দেখবেন ছবিটি? জেনে নিন মূল পাঁচটি কারণ।

১) ট্রেলার মুক্তির পর থেকেই শিরোনামে মধুর ভাণ্ডারকরের ছবি ‘ইন্দু সরকার’। জরুরি অবস্থার সময় প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গাঁধী সরকারের ভূমিকার ‘ভুল ব্যাখ্যা’ করা হয়েছে বলে প্রথম থেকেই কংগ্রেস কর্মী-সমর্থকদের বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয়েছে ছবির পরিচালক-সহ গোটা ইউনিটকে।কংগ্রেসের অভিযোগ কতটা সত্যি? জানতে হলে ছবিটা দেখুন।

আরও পড়ুন, ‘গুজরাত দাঙ্গায় মোদীর ভূমিকা নিয়ে ছবি করলে বোর্ড আটকাবে তো?’

২) পরিচালক মধুর ভাণ্ডারকরের দাবি, তাঁকে হুমকি দেওয়া হয়েছে। মুখে কালি লাগিয়ে পোস্টারে জুতোর মালা পড়িয়েছে বিক্ষোভকারীরা। মধুরের কি এই ব্যবহার প্রাপ্য?

ছবির প্রিমিয়ারে কীর্তি ও মধুর। ছবি: ‘ইন্দু সরকার’-এর টুইটার পেজের সৌজন্যে।

৩) বিতর্ক শুধু এই পর্যন্তই নয়। বোমা ফাটিয়েছেন প্রিয়া সিংহ পল নামে গুরুগ্রামের এক মহিলা। নিজেকে সঞ্জয় গাঁধীর মেয়ে বলে দাবি করে তিনি মধুরের ছবি নিয়ে আপত্তি জানিয়েছেন। প্রিয়ার দাবি, তাঁর বাবাকে যাতে খারাপ ভাবে দেখানো না হয়, তার জন্য আগে তাঁকে এই ছবিটি দেখানো হোক। এ নিয়ে হাইকোর্ট হয়ে দেশের সর্বোচ্চ আদালতেও আবেদন জানিয়েছেন তিনি। উদ্দেশ্য, ছবির মুক্তি আটকানো। কিন্তু তা সম্ভব হয়নি। প্রিয়া সিংহের এন্ট্রি কি কোথাও ছবির নেগেটিভ পাবলিসিটি করল?

৪) যদিও এ সবের মধ্যেই ছবির অভিনেত্রী কীর্তি কুলহারি এবং পরিচালকের দাবি, ছবিটি নিছক একটি প্রেমের গল্প। প্রেমের কাহিনির মাঝেই সত্তরের দশকে দেশ জুড়ে জরুরি অবস্থার সময়ে রাষ্ট্রীয় নিপীড়নের টুকরো টুকরো ছবি ফুটে উঠেছে ‘ইন্দু সরকার’-এ। কীর্তি, মধুরের দাবি কি সঠিক?

৫) ‘ইন্দু সরকার’-এ টলিউড কানেকশন টোটা রায়চৌধুরী। তাঁর পারফরম্যান্স কেমন? দেখতে চাইলে হলে তো যেতেই হবে। পাশাপাশি বিভিন্ন চরিত্রের লুক নিয়েও কৌতূহলী আমজনতা।