×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৫ মে ২০২১ ই-পেপার

বিনোদন

পরিবারে প্রায় সবাই বলিউডে সফল, তবু অল্প কিছু আঞ্চলিক ফিল্মেই আটকে গেলেন কাজলের এই বোন

নিজস্ব প্রতিবেদন
১২ এপ্রিল ২০২১ ১৪:৫৫
মাথায় কোনও বড় হাত না থাকলে নাকি বলিউডে জমি পাওয়া যায় না। অথচ এই অভিনেত্রীর সামনে, পিছনে নামজাদা লোকের ছড়াছড়ি সত্ত্বেও তিনি বলিউডে একেবারেই টিকতে পারেননি। আঞ্চলিক ছবির অভিনেত্রী হিসাবেই পরিচিতি পেয়েছেন তিনি।

তিনি শর্বানী মুখোপাধ্যায়। সম্পর্কে কাজল এবং রানির বোন। শুধু এইটুকু বললেই তাঁর আশেপাশের লোকজনের সম্পর্কে বলা হয় না। তাঁর বাবা রণ মুখোপাধ্যায় একজন জনপ্রিয় প্রযোজক ছিলেন। তাঁর কাকা দেব মুখোপাধ্যায় জনপ্রিয় অভিনেতা।
Advertisement
তাঁর ঠাকুরদা শশধর মুখোপাধ্যায় ছিলেন পরিচালক। তাঁর ঠাকুরমা ছিলেন কিশোর কুমারের বোন। তাঁর ভাই সম্রাট মুখোপাধ্যায়ও অভিনেতা।

শর্বানী যখন বলিউডে পা রাখেন কাজল তখন কেরিয়ারের শীর্ষে। রানি মুখোপাধ্যায়ও তখন ছবিতে কাজ করা শুরু করেছেন। সে সময় শর্বানী একটি বড় ব্যানার থেকে ছবি করার সুযোগ পান।
Advertisement
পরিচালক জে পি দত্ত তখন ‘বর্ডার’ ছবি বানাচ্ছিলেন। সুনীল শেট্টির স্ত্রী হিসাবে কমবয়সি নতুন মুখ খুঁজছিলেন তিনি। শর্বানী তখন স্কুলে পড়তেন। শর্বানীকেই এই চরিত্রের জন্য বেছে নেন তিনি।

এই ছবিতে শর্বানীর অভিনয় নজর কেড়েছিল। ছবির পর বেশ কয়েকটি ছবির জন্য সইও করে ফেলেছিলেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যের বিষয় সেই ছবিগুলি তৈরিই হয়নি। ২০০৩ সালে তাঁর অভিনীত ‘ক্যায়সে কহু কে …প্যায় হ্যায়’ ছবি মুক্তি পায়।

ছবিটি বক্স অফিসে জায়গা করতে পারেনি। ১৯৯৭ সালের ‘বর্ডার’ এবং ২০০৩ সালের এই ছবিটির মাঝে হাতেগোনা কয়েকটি মাত্র স্বল্প দৈর্ঘ্যের ছবিতে অভিনয় করেছিলেন তিনি। সময়ের সঙ্গে শর্বানীও বুঝে গিয়েছিলেন বলিউড তাঁর জন্য নয়।

শর্বানীকে দেখতে অনেকটা রানির মতো। তাঁর কণ্ঠস্বরও রানির মতো। হয়তো সে কারণেই রানির পর শর্বানী দর্শকদের মনে সে ভাবে প্রভাব ফেলতে পারেননি। এমনই মনে করেন বলিউডের একাংশ।

শর্বানী আঞ্চলিক ছবিতে কাজ শুরু করেন। ভোজপুরী, তামিল, তেলুগু-সহ একাধিক আঞ্চলিক ছবিতে কাজ করেন তিনি। তবে সফল হন ‘রাকিলিপাট্টু’ নামে একটি মালয়ালম ছবির হাত ধরে। মালয়ালম ভাষায় এটিই ছিল তাঁর প্রথম ছবি।

তবে প্রতি বছর দুর্গা পুজোর সময় প্রচুর বলিউড অভিনেতার সঙ্গে শর্বানীকে দেখা যায়। মুম্বইয়ে মুখোপাধ্যায় পরিবার দুর্গা পুজো করেন প্রতি বছর। সেখানে কাজল, রানি, অয়ন মুখোপাধ্যায় ছাড়াও রণবীর, আলিয়া-সহ বলিউডের বহু অভিনেতা, পরিচালকেরা হাজির হন। তাঁদের সঙ্গে শর্বানীর সম্পর্ক যে কতটা মধুর তা বোঝাই যায়।

কাজল এবং অজয় দেবগণের নিজস্ব প্রোডাকশন হাউস রয়েছে। দিদি রানি মুখোপাধ্যায় যশরাজ ফিল্মের মালকিন, ভাই অয়ন পরিচালক। ২০১৫ সালে এক প্রযোজকের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক নিয়ে গুঞ্জনও শুরু হয়েছিল।

শর্বানীকে ঘিরে এত জনপ্রিয় তারকার ছড়াছড়ি সত্ত্বেও বলিউডে সে ভাবে কোনও ছবিতে জায়গাই করে নিতে পারলেন না তিনি। আঞ্চলিক ছবিতেই অভিনয় করে সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে তাঁকে।

২০১০ সালে শেষ বারের মতো তাঁকে কোনও বলিউড ছবিতে দেখা গিয়েছিল— ‘৩৩২ মুম্বই টু ইন্ডিয়া’।

তারপর থেকে এখনও পর্যন্ত ৪টি মালয়ালম ছবিতে দেখা গিয়েছে তাঁকে। তাঁর শেষ মালয়ালম ছবি ২০১৭ সালে মুক্তি পেয়েছিল।