Advertisement
২৭ নভেম্বর ২০২২

হাঁটু-ঝুলে সেক্স অ্যাপিল

এ বার পুজোয় ক্রেজ। বিয়ের কনেও মেহেন্দি সারছেন মিডি পরে। লিখছেন অদিতি ভাদুড়িএ বার পুজোয় ক্রেজ। বিয়ের কনেও মেহেন্দি সারছেন মিডি পরে। লিখছেন অদিতি ভাদুড়ি

শেষ আপডেট: ২৮ অগস্ট ২০১৫ ০০:০১
Share: Save:

ক্যালিফোর্নিয়ার নোকিয়া থিয়েটার।

Advertisement

২০১৫-র পিপলস চয়েস অ্যাওয়ার্ডের চোখধাঁধানো মঞ্চ।

সারি সারি গ্লিটারেটির ভিড়ে হলিউডের হুজ হু-দের মধ্যে নজর কাড়ছিলেন ভিক্টোরিয়া বেকহ্যাম, নিকোল শার্জিনগাররা।

নাহ্, মিনি স্কার্ট বা বল গাউনে নয়। বরং হাঁটুর একটু নিচু ঝুলের মিডি ড্রেস-এ।

Advertisement

ব্রিটেনের যুবরানি কেট মিডলটনকেই দেখুন। প্রিন্সেস ডায়ানার মতোই ফ্যাশন সচেতনতায় ব্রিটেনের রাজপরিবারে আইকন হয়ে ওঠা কেট প্রায়ই পাপারাজ্জি ক্যামেরায় ধরা পড়েন মিডি স্লিভ পোশাকে। সলিড রঙা ফুল স্লিভ মিডিতে কেটের ক্লাসি লুক চোখ ধাঁধিয়ে দেয় ফ্যাশনিস্তাদের।

শুধু হলিউড কেন? বলিউডের কঙ্গনা রানাওত, সোনম কপূর, সোনাক্ষী সিংহরাও কারণে অকারণে গলিয়ে ফেলেন নি-লেংথ বা কাফ লেংথ-এর মিডি। তা সে ছবির প্রোমোশনাল ইভেন্ট হোক বা অ্যাওয়ার্ড সেরিমনি।

মিডি ম্যানিয়া

কিন্তু এ শহরের মেয়েরা কতটা ভাসছেন মিডি জোয়ারে?

স্পা ইনচার্জ তুর্নিশা চক্রবর্তী যে কোনও ইভেন্টেই মিডি পরতে স্বচ্ছন্দ। ‘‘আমাদের হোটেলে প্রচুর ইভেন্ট থাকে। সেখানে তো মিডি পরিই। এ ছাড়া অফিস ডে-তেও সলিড কালার মিডি পরি। আমি একটু মোটা। তাই ফিটেড শর্ট লেংথ মিডি বেশি পরি। স্মার্ট আর খুব কমফর্টেবল।’’ কর্পোরেট কর্মী দীপা সরকার প্রায়ই মিডি পরেন অফিসে। ‘‘প্রিন্টেড বা অ্যাসিমেট্রিকাল মিডি আমার খুব পছন্দের। অফিস ড্রেস হিসেবেও ক্লাসি,’’ বললেন দীপা।

বিয়ের কনের মিডি মোড

ডিজাইনার প্রণয় বৈদ্য বেশ মজার তথ্য দিলেন। জানালেন অনেক হবু কনেই আজকাল নাকি মিডি পোশাকে নিজেদের মেহেন্দি সেলিব্রেট করছেন। ‘‘মিডির গুণ হল পোশাকটা খুব ডিসেন্ট। ফুল লেংথ-ও নয়। আবার হাঁটুর ওপরেও নয়। তাই অনেক হবু কনে মিডিকে বেছে নিচ্ছেন মেহেন্দির পোশাক হিসেবে। আমি এমনকী ক্লায়েন্টদের পছন্দমতো রাজস্থানি বগরু প্রিন্টের মিডিও বানাচ্ছি। থ্রেড বা নিডলওয়ার্ক ডিজাইন রাখছি।’’ প্রণয়ের তৈরি মিডিতে অনুপ্রেরণা হিসেবে থাকছে তুরস্কের ডিজাইনও। ফ্রিল বা লেয়ার্ড মিডি এই স্কার্টগুলো অনায়াসে পরতে পারেন ফুলেল ছাপা ক্রপ টপ বা ফ্রিলড টপ দিয়ে। ক্লাসি এই ফ্যাশন স্টেটমেন্ট ক্যারি করতে পারেন সব বয়সের মহিলারাই।

বিলো দ্য নি...

নিজের ফ্যাশন লাইনে অ্যাসিমেট্রিকাল বা জিওমেট্রিকাল সিনট্যাক্সে প্রচুর অভিনব কাজ করেন ডিজাইনার অভিষেক দত্ত। বললেন শহুরে যে কোনও বয়সের মহিলাদের মধ্যেই কিন্তু দারুণ চাহিদা বিলো দ্য নি, কাফ লেংথ মিডি পোশাকের। তা সে স্কার্ট হোক বা ড্রেস। ‘‘আমি ফ্লেয়ার্ড মিডি নিয়ে কাজ করছি প্রচুর। মিডির ভেতর ট্রান্সপ্যারেন্ট ফেব্রিক দিয়ে শিয়ার মিডি-ও বানাচ্ছি। আওয়ার গ্লাস ফিগার যাঁদের, তাঁরা ফিটেড মিডি পরলে দেখতে ভাল লাগবে। আর এই ফিটেড মিডিগুলোর পেছনে স্লিট থাকে। তাতে পোশাকের আবেদনটাও বাড়ে। আর লেংথ-টা ভাল। তাই স্মার্টলি ক্যারি করা যায়,’’ বলেন অভিষেক। তবে অভিষেক হাই-ওয়েস্টেড মিডি নিয়েও এক্সপেরিমেন্ট করছেন। জানালেন যাঁদের ফিগার সুন্দর, তাঁরা পরতে পারেন ফ্লেয়ার্ড দেওয়া এই মিডি। আর যাঁরা মোটার দিকে, তাঁদের জন্য নর্ম্যাল ওয়েস্টেড মিডি।

পাওয়ার ড্রেসিং

মিডি স্কার্ট তো পরলেন। কিন্তু টিম আপ করবেন কী ভাবে?

‘‘শর্ট ক্রপ টপ, এমনকী টি শার্ট দারুণ কমপ্লিমেন্ট করে মিডি স্কার্টকে। অফিসে পাওয়ার ড্রেসিংও করতে পারেন মিডিতে,’’ আবারও বলেন অভিষেক। ফেব্রিক লেয়ারিং, লিনেন, ক্যানভাস মেটিরিয়ালই অভিষেক বেছে নিয়েছেন মিডি বানাতে। আরও জানান খুব বেশি বডি ফিটিং বা স্ট্রাকচার্ড মিডি পরতে না চাইলে স্কিন হাগিং মেটেরিয়াল ব্যবহারের দরকার নেই। এমনকী ক্লায়েন্টদের পছন্দমতো অভিষেক মিডি পোশাক তৈরিতে বেছে নিচ্ছেন স্যুটিং মেটেরিয়ালও। কোরাল প্রিন্ট ছাড়াও তাঁর বানানো লেয়ার্ড মিডিতে থাকছে ইন্ডিগো বা গ্রে-র মতো সলিড রং।

মিডি-তে স্টেটমেন্ট

তবে ডিজাইনার শুচিস্মিতা দাশগুপ্ত বললেন মোটা হোন বা রোগা, মিডি পরলে কিন্তু পা-টা সুন্দর দেখানো চাই। তাই কী জুতো পরছেন সেটা খেয়াল রাখতে হবে। ‘‘শর্ট হাইট যাঁদের, তাঁরা নি-লেংথ মিডি পরুন। আর রোগা, লম্বা যাঁরা, তাঁরা নি বা কাফ লেংথের এ-লাইন বা স্ট্রেট মিডি পরতে পারেন। তবে ফ্লেয়ার্ড প্যাটার্নটা এড়িয়ে গেলেই ভাল। আর পা কিন্তু সুন্দর দেখানো চাই। নি-লেংথ মিডির সঙ্গে সুন্দর দেখতে স্টিলেটো বা বক্স হিল পরতে পারেন।’’ শুচিস্মিতা আরও জানান ক্লাসি মিডির সঙ্গে যে কোনও একটা স্টেটমেন্ট গয়নাই যথেষ্ট। সেটা যেমন একটা অর্নামেন্টাল নেকপিস হতে পারে, তেমনই হতে পারে একটা গর্জাস আংটি। বা সুন্দর একটা স্কার্ফ। নেওয়া যেতে পারে দারুণ একটা বেল্ট-ও।

রাজস্থানি ঘুঙরুতে ছন্দের মিডি

শহরের আর এক ডিজাইনার-স্টাইলিস্ট নেহা পণ্ডা নিজেই প্রচুর মিডি পরেন। নেহার মতে নি-লেংথ, কাফ-লেংথ, মিডি যেমনই পরুন না কেন, সুন্দর অ্যাকসেসরি মাস্ট। ‘‘একটু এক্সপেরিমেন্টাল হোন। রাজস্থানি অ্যাঙ্কলেট পরতে পারেন। আর মিডিটা যেহেতু একটু লং প্যাটার্ন ড্রেস, তাই ভাইব্র্যান্ট রঙের সুন্দর স্কার্ফ নিলেও দারুণ লাগবে। পরতে পারেন সুন্দর হেয়ারব্যান্ডও। এমবেলিশড ব্যান্ড খুব ভাল যায় মিডির সঙ্গে,’’ জানান নেহা।

পায়ের যত্ন নিন

নতুন কেতায় গা ভাসিয়ে মিডি তো পরলেন। কিন্তু ভেবেছেন কি যে রকম সাজবেন ভাবছেন, সেটা মানাবে তো পছন্দের মিডিটার সঙ্গে? ভারী অ্যাকসেসরি, মেক আপ লুক, না নো মেক আপ লুক?

বিউটি এক্সপার্ট শর্মিলা সিংহ ফ্লোরা মনে করেন দিনের বেলা মিডি-র সঙ্গে নো মেক আপ লুকটাই সবচেয়ে ভাল। ‘‘সন্ধেবেলা সুন্দর একটা মিডি পরে, আইলাইনার নয়, লাগান ফলস্ আইল্যাশ। চুলটা সাইড স্টেপিং-এ রাখতে পারেন। বা করে নিতে পারেন টং কার্ল। নি লেংথ মিডি পরলে কিন্তু পা-টা ভাল মতো ওয়্যাক্স করতে হবে। যেহেতু পা-টা দেখা যায়, তাই পা সুন্দর রাখা মাস্ট। আর গর্জাস স্টিলেটোজ পরলে ফুট স্ক্রাবিং-টাও দরকার। আর চুলটা টপ নট।’’

শর্মিলা আরও জানান মিডি পরলে ফ্লোরাল শেড-এর লিপস্টিক লাগিয়ে ঠোঁটের আউটলাইনটা লিপকালারের সঙ্গে মিশিয়ে দিলেই তৈরি আপনার সেক্সি মিডি লুক।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.