Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৭ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

বিনোদন

কিশোরী নীতুকে মেকআপ রুমে ঢুকে কাজল মাখিয়ে দিয়েছিলেন ঋষি! তুমুল ঝগড়ার পরই প্রেম

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ১৮ এপ্রিল ২০১৯ ১৩:৫৮
বলিউডের চকোলেট বয়ের সঙ্গে এক কিশোরীর প্রেমের গল্প। এক্কেবারে সিনেমার গল্প মনে হচ্ছে? না আসলে এটাই বাস্তব। ঋষি কপূরের সঙ্গে নীতু সিংহের প্রেমের গল্প ঠিক এই রকমই।

বলিউডের অন্যতম ‘হট কাপল’ বলা হত তাঁদের। কিন্তু কী ভাবে চিন্টুর কাছাকাছি এলেন নীতু?
Advertisement
দু’জনের যখন আলাপ, চিন্টু তখন বলিউড তারকা। চারপাশে নায়িকাদের ভিড়, নীতুর তখন মাত্র ১৪ বছর বয়স।

নীতু সবে পা রেখেছেন ইন্ডাস্ট্রিতে। নীতুকে দেখলেই রাগিয়ে দিতেন ঋষি। নীতুর মেক আপ রুমে গিয়ে তো তাঁর মেক আপের পর কাজল মাখিয়ে দিয়েছিলেন ঋষি। তুমুল ঝগড়া হয় দু’জনের। প্রেমের সূত্রপাত সেই ঝগড়া থেকেই। ঋষি সারাক্ষণ মজা করতেন নীতুকে নিয়ে। নীতু নাকি তা একেবারেই পছন্দ ছিল না।
Advertisement
নীতুর সঙ্গে প্রথম ডেটে গেলেন ঋষি, সঙ্গে গেলেন নীতুর এক আত্মীয়। আসলে নীতু তখন এতটাই ছোট, তাই এক তুতো ভাইকে সঙ্গে পাঠিয়েছিলেন নীতুর মা।

কিছু দিনের মধ্যেই ঋষি বিয়ের প্রস্তাব দিলেন নায়িকাকে। খুশি হলেও চিন্তায় পড়ে গেলেন নীতু। আসলে আর্থিক অবস্থা ভাল ছিল না তাঁদের। সংসার চলত নীতুর রোজগারে।

ঋষি প্রস্তাব করলেন, নীতুর মাও কপূর পরিবারের সঙ্গেই এসে থাকতে পারেন। তা হলে আর কোনও অসুবিধা হওয়ার কথা নয়। আশ্বস্ত হলেন মা ও মেয়ে।

প্রাথমিক কথাবার্তার মাঝে আচমকাই দিল্লিতে কপূর পরিবারের একটি বিয়েতে ঋষি-নীতুর এনগেজমেন্টের ঘোষণা হয়। তখন নীতু এতটা অবাক হয়ে গিয়েছিলেন, যে তাঁকে নাকি একটা কোল্ড ড্রিঙ্কস হাতে ধরিয়ে দেন ঋষি।

১৯৮০ সালের ২২ জানুয়ারি সাত পাকে বাঁধা পড়লেন তাঁরা। কিন্তু বিয়ের কয়েক বছরের মধ্যেই নতুন বিতর্ক তৈরি হল। গুঞ্জন রটে গেল, কপূর পরিবারের তরফে ছবির কাজ ছেড়ে দিতে বলায় একের পর এক ছবির চুক্তি ছেড়ে দিচ্ছেন তিনি।

বিবৃতি দিলেন নীতু। এগিয়ে এলেন ঋষির পাশে। বললেন, স্বামী তাঁর পাশেই রয়েছেন। স্বেচ্ছায় তিনি ছেড়ে দিয়েছেন ছবির কাজ। অবসর নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

নয়ের দশকে বলিউডের অসংখ্য সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম ও বেশ কয়েকটি দৈনিকে প্রকাশিত হল, ঋষি মাদকাসক্ত হয়ে পড়েছেন। মদ্যপ অবস্থায় নীতুকে মারধরের অভিযোগও উঠেছিল। নীতু নাকি বাড়ি ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন। কিন্তু সব কিছুকে পিছনে সরিয়ে ফিরে আসেন নীতু। কপূর পরিবারের সঙ্গেই থাকতেন তিনি।

নীতু পরবর্তীতে একটি সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘‘সব সম্পর্কেই ওঠানামা থাকে, থাকে টানাপড়েনও। সব ভুল বোঝাবুঝি মিটিয়ে ভালবাসার মানুষের পাশে থাকাটাই আসল।’’

এর পর আর কখনও ঋষি বা নীতুকে নিয়ে কোনও গুঞ্জন সামনে আসেনি।

পরবর্তীতে ছেলে রণবীরও পা রেখেছেন বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে। মেয়ে ঋদ্ধিমা কপূরও বিয়ে করেছেন। তাঁর একটি মেয়েও রয়েছে। নাতনি নীতু আর ঋষির সবচেয়ে প্রিয়।

৩০ বছর পর ‘লাভ আজ কাল’ ছবিতে এক সঙ্গে কাজ করলেন তাঁরা। ‘দো দুনি চার’ ছবিতেও এক সঙ্গে কাজ করলেন ঋষি-নীতু।