• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

আইসল্যান্ডে উষ্ণতার গল্প লিখছেন মিলিন্দ-অঙ্কিতা

milind soman and ankita
একান্তে মিলিন্দ এবং অঙ্কিতা। ছবি-ইনস্টাগ্রাম।

ঘুরতে ভালবাসেন দু’জনেই। ফাঁক পেলেই কখনও বালি আবার কখনও বা আইসল্যান্ড। কাদের কথা বলা হচ্ছে বলুন তো? মিলিন্দ সোমান এবং তাঁর স্ত্রী অঙ্কিতা কোনওয়ার। হোক না দু’জনের মধ্যে বয়সের বিস্তর ফারাক। তাতে কী? রোম্যান্সে আর অন্তরঙ্গতায় সেই কবে থেকেই ‘কাপল গোল’ দিয়ে যাচ্ছেন ওই জুটি। আবার বেরিয়ে পড়েছেন তাঁরা। চলে গিয়েছেন সুদূর আইসল্যান্ড।  আইসল্যান্ডের তিন ডিগ্রি তাপমাত্রাতেও তাঁরা মজেছেন রোম্যান্সে। তাও আবার জলের মধ্যে! ভাবা যায়? সেই ছবি আবার পোস্টও করেছেন ইনস্টাগ্রামে।

মিলিন্দের খালি গা, বছর ৫৩-তেও তিনি যেন তরুণ তুর্কি। অঙ্কিতার পরনে বিকিনি। সূর্যের আলো এসে লাগছে তাঁদের গায়ে। কোনওদিকে যেন হুঁশ নেই তাঁদের। নিজেদের মধ্যেই বুঁদ দু’জনে।

অথচ বিয়ের পর ওই জুটিকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় কম ট্রোলিং হয়নি। অঙ্কিতার থেকে বয়সে প্রায় বছর ত্রিশের বড় মিলিন্দ। সেই নিয়ে ঠাট্টা-তামাশাও চলেছিল বিস্তর। কেউ বলেছিলেন অঙ্কিতার নাকি মিলিন্দকে ‘বাবা’ বলে ডাকা উচিত, আবার কেউ বা মিলিন্দকে কটাক্ষ করে বলেছিলেন, ‘বুড়ো বয়সে ভিমরতি’। তাতে অবশ্য ‘ডোন্ট কেয়ার’ ওই জুটির। নিজেদের রূপকথার মতো প্রেম কাহিনিতেই মেতে রয়েছেন তাঁরা।

আরও পড়ুন- প্রথম ছবি মুক্তির দিনই জীবনে ঘটেছিল বড় অঘটন, শেয়ার করলেন রানি

 

আরও পড়ুন-গান ছেড়ে ড্রাগে ডুবেছিলেন, ফের অডিশনের মঞ্চে রিয়েলিটি শো চ্যাম্পিয়ন

 

 

দেখে নিন তাঁদের ট্রিপের ঝলক 

 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন